বিষয় বিয়ে এবং...
সামিহা সুলতানা অনন্যা১৪ নভেম্বর, ২০১৬ ইং
বিষয় বিয়ে এবং...
 

দেখতে দেখতে বছর শেষে আবার এল বিয়ের মৌসুম। বিয়ের মধ্য দিয়ে জীবনে নতুন এক পথে যাত্রা শুরু হয়। সে যাত্রাপথটি সম্পূর্ণ অনিশ্চিত, অজানা। তাই মনে যেমন ভীতি কাজ করে, তেমনি নতুন কিছু পাওয়ার স্বপ্ন দেয় এগিয়ে যাওয়ার শক্তি। পারিবারিকভাবে বিয়ে ঠিক হলে, যে মানুষটির সাথে সারা জীবন কাটাতে যাচ্ছে তাকে চেনার সুযোগ আসে বিয়ের পরে। প্রেমের বিয়ের ক্ষেত্রে জীবনসঙ্গীকে কিছুটা হলেও আগে থেকে জানার সুযোগ হয়। বিয়ের আগে ও পরের জীবন সম্পর্কে জানতে কথা হচ্ছিল কয়েকজন দম্পতির সাথে।

নীলা ও তন্ময়ের বিয়ের প্রায় এক বছর হতে চলল। নীলার কাছে জানতে চাইলাম তাদের বিয়ের সম্পর্কে। নীলা বলল, বিয়ের বছর দুয়েক আগে থেকেই সে চিনত তন্ময়কে। শিশুদের জন্য পত্রিকা প্রকাশের কাজের সূত্রেই তাদের পরিচয়। দুজনের পছন্দ ও সখ মিলে যাওয়ায়ই তারা একজন আরেকজনকে আরও ভালোভাবে বুঝতে পেরেছে। এখন তারা দুজনই চাকরিজীবী। নীলা বলেন, পারিবারিকভাবে বিয়ের চাপ থাকায় সম্পূর্ণ অচেনা একজনকে জীবনসঙ্গী করার চেয়ে কাছের বন্ধুটিকে জীবনসঙ্গী করার ব্যাপারে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেছি। যখন পরিবার থেকে নানা পাত্র দেখা শুরু হলো, বুঝতে পারলাম আমার জীবনসঙ্গী আমাকেই খুঁজতে হবে। যে আমাকে বুঝবে আর আমি যাকে বুঝব। পরিবার থেকে আমাকে কখনোই বাধা দেওয়া হয়নি বরং সবসময় বলা হয়েছে নিজের পছন্দ মতো বন্ধু খুঁজে বের করতে। আর তাই পরিবারকেও ওর কথা বলেছি।

বিয়ের আগে বন্ধুত্বের সম্পর্ক বিয়ের মধ্য দিয়ে পূর্ণতা পেয়েছে। একজন নারীর জন্য অনার্স-মাস্টার্স পড়ার শেষ সময়ে বিয়ের এই সামাজিক চাপ খুবই কঠিন। অনেক সময় তা একজন নারীকে ভুল সিদ্ধান্ত নিতেও বাধ্য করে। তাই এই ধারার পরিবর্তন প্রয়োজন। তবে বিয়ে মানেই পারস্পরিক বোঝাপড়ার জীবন। তাই তা সফল করতে দুপক্ষের ছাড় প্রয়োজন হয়। বিয়ের আগেই তাই এ ছাড়ের জন্য মানসিক প্রস্তুতির দরকার।

রাজিব ও শম্পার বিয়ের বছর দেড়েক হতে চলল। তবে তারা এখনো প্রচলিত ধারায় একসাথে থেকে সংসার করতে পারেনি। তাদের পরিচয় ইন্টারনেটে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। যে সময় তাদের পরিচয়, তারা দুজনই আমেরিকার দুই স্টেটে মাস্টার্স করছেন। ভবিষ্যতে দুজনেরই পিএইচডির ইচ্ছা আছে এবং পিএইচডি শেষে দেশে এসে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক হওয়ার বাসনা। এসব মিল থেকে মনে হয়েছে তারা একজন আরেকজনকে বুঝতে পারবেন। কিন্তু বিয়ের জন্য তাদের অবস্থান ছিল খুবই অনিশ্চিত। কারণ দুজন দুই স্টেটে হওয়ায় কারও পক্ষেই বিশ্ববিদ্যালয় পরিবর্তন সম্ভব নয়। তাহলে তাদের পিএইচডির স্বপ্ন অসম্পূর্ণ রয়ে যাবে। তাই বলে কি এ সম্পর্ক থেমে থাকবে? তা হতে পারে না। তাই বছর দেড়েক আগে ঢাকায় পারিবারিকভাবে তাদের বিয়ের আয়োজন করা হয়। শম্পা বলেন, বিয়ের পর আলাদা থাকলেও প্রযুক্তির সাহায্যে দুজন দুজনকে সর্বক্ষণ সঙ্গ দিচ্ছি। বছর জুড়ে আমাদের ছুটির দিনের জন্য অপেক্ষা। একমাত্র ছুটির সময় হয় ও চলে আসে আমার স্টেটে নয় আমি ওর স্টেটে। যদিও ড্রাইভে যেতে আমাদের প্রায় ঘণ্টা ছয়েক লাগে। তাই সম্পূর্ণ সংসার জীবনকে উপলব্ধি করতে পারিনি, তবে নতুন সংসারের স্বপ্ন দেখা শুরু করেছি। আমাদের পিএইচডি শেষ হতে আরও বছর দুই লাগবে। তাই এভাবেই সামনের দিনগুলো কাটবে।

শাওন এবং চৈতী। তাদের বিয়ে বলতে হয় প্রকৃত প্রেমের বিয়ে। বিয়ের আগে তাদের পরিচয় প্রায় ছয় বছর। শাওন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যানেজমেন্টের ছাত্র আর চৈতী ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েছেন। তাদের বিয়ে তিন বছর হতে চলল। এর মাঝে তাদের পাড়ি দিতে হয়েছে অনেক বন্ধুর পথ। ঢাকার এক ছোট ফ্ল্যাটে তাদের দুজনের ছোট্ট সংসার। পড়াশোনা ও লেখালেখির জগতের মধ্য দিয়ে তাদের পরিচয়। চৈতীর কাছে জানতে চাইলাম তার বিয়ের আগের ও পরের জীবনের অভিজ্ঞতা। তিনি বলেন, আমি এমন একজনকে আমার জীবনে চেয়েছিলাম যে আমাকে বুঝবে। আমার মাঝে সুপ্ত প্রতিভাগুলোকে খুঁজে বের করতে সাহায্য করবে। আমাকে আমার পছন্দ অনুযায়ী চলতে দিবে। আমি শিশুদের ভালোবাসি, ওদের জন্য লিখি। আমার অনূদিত বই ‘সেই নয়টি রূপকথা’, এখন আরও কিছু অনুবাদ করছি।

আমি আমার কাজে শাওনের কাছ থেকে সবসময়ই উত্সাহ পেয়েছি। বিয়ের আগে অনেক সময় পাওয়ায় আমাদের পারস্পরিক বোঝাপড়ার জায়গাটি ছিল অনেক শক্তিশালী। যা আমাদের বিয়ের পরের পথ পাড়ি দিতে অনেক সাহায্য করেছে। বিয়ের পর চলতে গিয়ে দুজন দুজনকে নতুন করে বুঝেছি এখনও বুঝছি। হয়ত এই বোঝার প্রক্রিয়া সারাজীবন ধরেই চলবে কারণ মানুষ মাত্রই পরিবর্তনশীল। কোনো কিছুই স্থির নয়।

বিয়ের সময়ের আনুষ্ঠানিকতাগুলো একজন নারীর জন্য পালন করা বেশ কঠিন। আশপাশে সবার আনন্দ হলেও বিয়ের সময় কন্যাটির মন সব সময়ই থাকে উদ্বেগে পূর্ণ। অনেকসময় মানুষ নারীর সেই দুর্বলতাকে উপভোগ করে, যেটি খুব কষ্টকর। তাকে সাহস না দিয়ে তার সেই যাত্রাপথকে আরও কঠিন করে তোলে। যেটি কখনোই উচিত নয়।

 

 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৪ নভেম্বর, ২০১৯ ইং
ফজর৪:৫৩
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৩৮
মাগরিব৫:১৭
এশা৬:৩২
সূর্যোদয় - ৬:১১সূর্যাস্ত - ০৫:১২
পড়ুন