আত্মরক্ষার্থে কিশোরীদের কুংফু প্রশিক্ষণ
১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং
আত্মরক্ষার্থে কিশোরীদের কুংফু প্রশিক্ষণ
নারীরা আজ বিভিন্নভাবে রাস্তা-ঘাট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও নিজ নিজ কর্মস্থলে নানা প্রতিবন্ধকতার শিকার ও যৌন নির্যাতনসহ যৌন নিপীড়নের শিকার হচ্ছে

মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল

স্কুল-কলেজে যেতে রাস্তা-ঘাটে বখাটেদের কবল থেকে নিজেদের আত্মরক্ষা, যৌন নিপীড়ন প্রতিরোধ ও নিজেদের আত্মপ্রত্যয়ী হিসেবে গড়ে তুলতে কিশোরীদের (মেয়েদের) কুংফু কারাতে প্রশিক্ষণ শুরু করেছেন টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইসরাত সাদমীন। তার নিজের দপ্তরের কাজের ফাঁকে ফাঁকে সরকারি এই কর্মকর্তার নিজস্ব উদ্যোগ ও পরিকল্পনায় কিশোরীদের আত্মপ্রত্যয়ী হিসেবে গড়ে তুলতে ভিন্নধর্মী এই কংফু কারাতে প্রশিক্ষণ কর্মসূচি হাতে নিয়েছেন। তার ভিন্নধর্মী এই কর্মসূচি এলাকার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক ও অভিভাবকদের মধ্যে ব্যাপক সারা জাগিয়েছে।

কিশোরীদের ভিন্নধর্মী কুংফু কারাতে এই প্রশিক্ষণের উদ্যোক্তা ও অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইসরাত সাদমীন, বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সদস্য মোঃ আনোয়ার হোসেন, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ খলিলুর রহমান, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ জাকির হোসেন মোল্লা, বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা প্রগতি সংঘ টাঙ্গাইলের নির্বাহী পরিচালক ও বিশিষ্ট মানবাধিকার নেত্রী মাহমুদা শেলী, মানবাধিকার কর্মী মনিরা আহমেদ এবং একসিস ইয়োগা সেন্টারের ব্লাকবেল্ট হোল্ডার ও কিশোরীদের কুংফু কারাতে প্রশিক্ষক খন্দকার সাব্বির হোসেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইসরাত সাদমীন জানিয়েছেন, নারীরা আজ বিভিন্নভাবে রাস্তা-ঘাট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও নিজ নিজ কর্মস্থলে নানা প্রতিবন্ধকতার শিকার ও যৌন নির্যাতনসহ যৌন নিপীড়নের শিকার হচ্ছে। নিজেদের আত্মসম্মানের ভয়ে নারীদের মধ্যে অনেকেই এসব নিপীড়ন চোখ বুজে সহ্য করে নেয়। এমনকি পরিবারের কাছেও বিষয়টি জানান না। বিশেষ করে স্কুল ও কলেজ পড়ুয়া কিশোরী মেয়েরা এমন পরিস্থিতির শিকার হচ্ছে বেশি। কিন্তু নারীদের মর্যাদা রক্ষা ও নিজেদের আত্মপ্রত্যয়ী হিসেবে গড়ে তুলতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইসরাত সাদমীন টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে উপজেলা প্রশাসনের সরকারি দপ্তরে ‘একটি কন্যা সাহসিক সেল’ গঠন করেছেন। এই কন্যা সাহসিক সেলে মির্জাপুর উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কিশোরী ছাত্রী ছাড়াও যে কোনো সমাজের নির্যাতিত নারীরা সার্বিক সহযোগিতা পাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন। এছাড়া বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ, মাদক ও জুয়া নির্মূল, মা সমাবেশ, প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়, মাদ্রাসা ও কলেজের শিক্ষক এবং শিক্ষার গুণগত পরিবর্তনসহ ১৪টি বিষয়ের উপর তিনি কাজ করে যাচ্ছেন। কিশোরীদের আত্মপ্রত্যয়ী ও যৌন নিপীড়ন থেকে রক্ষার জন্য কুংফু কারাতে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অঞ্চলের অসহায় ও নির্যাতিত এবং ঝরেপড়া ছাত্রীদের স্বাবলম্বী করতে বিদ্যালয়ে ভর্তিসহ বিভিন্ন বিষয়ের উপর প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণ করে আত্মপ্রত্যয়ী হিসেবে গড়ে তোলার চেষ্টা করছেন।

 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং
ফজর৪:২৭
যোহর১১:৫৬
আসর৪:২৩
মাগরিব৬:১০
এশা৭:২৩
সূর্যোদয় - ৫:৪৪সূর্যাস্ত - ০৬:০৫
পড়ুন