মৃত্যুর মাঝেই শেষ হলো তাঁর প্রতীক্ষা
০৫ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ইং
মৃত্যুর মাঝেই শেষ হলো তাঁর প্রতীক্ষা
  মনজুরুল ইসলাম বাবু

 

তিনি বলেছিলেন, মৃত্যুর মাঝেই শেষ হবে তাঁর প্রতীক্ষা। ১৯ জানুয়ারি শুক্রবার দুপুরে তার সেই প্রতীক্ষা শেষ হলো। ৯৩ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন শহীদ জননী সালেমা বেগম। শহীদ লে. সেলিম মোহাম্মদ কামরুল হাসানের মা সালেমা বেগম কীসের প্রতীক্ষায় ছিলেন, সেটা জানতে হলো আমাদের ফিরে যেতে হবে আজ থেকে ৪৬ বছর আগে। ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশ স্বাধীনতা লাভ করলেও, তখনও দেশের কিছু অংশ পাকিস্তানি সেনা ও তাদের সহযোগীদের দখলে ছিল। ঢাকার মিরপুর এরকম একটি এলাকা। ১৯৭২ সালের ৩০ জানুয়ারি মিরপুর মুক্ত করতে গিয়ে শহীদ হন লে. সেলিম। বিহারী অধ্যুষিত মিরপুরের ওই এলাকা থেকে সেলিমের মৃতদেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

সালেমা বেগম এমন এক মা, যিনি তার দুই ছেলেকে নিজের হাতে মুক্তিযুদ্ধে পাঠিয়েছিলেন। ২৫ মার্চ ঢাকা শহরে গণহত্যার বিভীষিকার পর তিনি তাদের যুদ্ধে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেন। যুদ্ধে যাওয়ার উদ্দেশ্যে যেদিন তারা বাড়ি ছাড়েন, সালেমা বেগম নিজে বাসার দরজা খুলে দিয়েছিলেন। ছেলেদের বিদায় জানানোর সময় বুকের মধ্যে থেকে উঠে আসা কান্না চেপে রেখে তিনি বলেছিলেন, ‘যদি গুলি খাও, বুকে খাবে, পিঠে গুলি খাবে না, কোনো অবস্থাতেই যুদ্ধক্ষেত্র ছেড়ে পালাবে না। আমি কোনো কাপুরুষের মা হতে চাই না।’

তিনি নিজেও নানাভাবে মুক্তিযোদ্ধাদের সহযোগিতা করেছেন। ১৯৭১ সালে স্বামী ডা. এম এ সিকদার তেজগাঁও সেন্ট্রাল মেডিকেলের পরিচালক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। স্বামীর পেশাগত ঐ অবস্থানকে কাজে লাগিয়ে তিনি প্রায়ই আহত মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিত্সার জন্য গজ, ব্যান্ডেজ, তুলা, আয়োডিন সরবরাহ করতেন।

১৯২৫ সালের ১৮ নভেম্বর অবিভক্ত ভারতের আলমডাঙ্গা শহরে জন্ম নেওয়া সালেমা বেগম যখন স্কুলের ওপরের ক্লাসে, তখন তাঁর বড় ভাই (ডা.) সামসুর রহমান কলকাতা মেডিকেল কলেজে পড়তেন এবং বামপন্থি রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। প্রিয় সন্তান, বড় ছেলে সেলিমকে হারিয়ে সালেমা বেগমের নিজের জন্য আর কিছু চাওয়া-পাওয়ার ছিল না। তিনি চেয়েছিলেন, ওর অস্থিপঞ্জর একটিবার স্পর্শ করে ওকে বিদায় দিবেন। কিন্তু তা পূরণ হয়নি। তিনি সারাজীবন তাই লাখো শহীদের মাঝে নিজের সন্তানকে খুঁজে বেড়িয়েছেন, মুক্তিযুদ্ধের অধরা স্বপ্ন পূরণে নীরবে-নিভৃতে কাজ করে গেছেন আর সেভাবেই বিদায় নিলেন।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২০ ইং
ফজর৫:২০
যোহর১২:১৩
আসর৪:১২
মাগরিব৫:৫১
এশা৭:০৫
সূর্যোদয় - ৬:৩৭সূর্যাস্ত - ০৫:৪৬
পড়ুন