সামিয়ার ‘হলিডে মর্নিং’
৩০ এপ্রিল, ২০১৮ ইং
সামিয়ার ‘হলিডে মর্নিং’
  মোহাম্মদ ওমর ফারুক

 

সামিয়ার শুক্রবারের সকালটা শুরু হয় হলিডে মর্নিং এই শিরোনামে। আর জে সামিয়া সকলের ঘুম ভাঙান তার আবেগি আর দৃঢ় কণ্ঠস্বরে। সেই লিংক কখনো ছুঁয়ে যায় স্মৃতির পাতা, ল্যান্ড ফোন, নীল খামে চিঠি, জানালা, জোনাকি পোকা, কাশ ফুল— এরকম অদ্ভুত সব বিষয়ে কথা হয় এখানে। ঠিক পাঁচ আগে সিটিএফ ৯৬.০ যাত্রা শুরু করেছিল। সেই যাত্রা পথের সারথি ছিল আর জে সামিয়া। প্রতি শুক্রবার তার প্রোগ্রাম ঠিক সকাল আটটায় শুরু হয় দীর্ঘ পাঁচ ধরে।

বাবার স্যানিও থ্রি ইন ওয়ান এ ছোট বেলায় বিবিসি শুনে বড় হয়েছেন সামিয়া কালাম। সেই বিবিসি শুনে নিজের অজান্তেই স্বপ্ন দেখা শুরু বেতার নিয়ে। তার বাবা বলতেন, ‘বেতার শক্তিশালী মাধ্যম, অনেক অনেক দূরে যেখানে টেলিভিশন পৌঁছে না, সেখানেও কিন্তু বেতার তরঙ্গ পৌঁছে যায়!’ বিবিসির মানসী বড়ুয়া তার আইডল। তাইতো শেষমেশ বেতারেই ক্যারিয়ার শুরু। সামিয়া বলেন, এমন স্বপ্ন ছিল ছোটবেলা থেকেই; কিন্তু দেরিতে হলেও স্বপ্ন ছুঁতে পেরেছি।

ভিকারুন্নেসা নূন কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক এবং আহসান উল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক-এর পর পারিবারিক সূত্রে মার্কিন মুলুকে বেশ কয়েক বছর অবস্থান শেষে যখন দেশে ফিরেন, তখন তার সাজানো গোছান সংসার; কিন্তু এত বছর পরেও বেতারের স্বপ্ন এতটুকু কমেনি। সেই অদম্য ইচ্ছেই  সিটি এফএম-এর সাথে স্বপ্নের যাত্রা শুরু  হয় তার। 

জানতে চাইলে সামিয়া বলেন, ‘নিঃসন্দেহে এটি একটি অর্জন। বাংলাদেশের প্রাইভেট রেডিও স্টেশনগুলোতে কেবল দুই-একটা অনুষ্ঠান এরকম দীর্ঘ সময়কাল ধরে সম্প্রচারিত হয়েছে।’ তার অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে এসেছেন মুক্তি যুদ্ধ জাদুঘরের সেক্রেটারি বিশিষ্ট বুদ্ধিজীবী জিয়া উদ্দিন তারেক আলী, গ্রে ঢাকার মেনেজিং ডিরেক্টর বিজ্ঞাপন নির্মাতা গাউসুল আলম শাওন, ওমেন্স চ্যাপটার এর সম্পাদক সুপ্রিতি ধরসহ কৃষ্ণকলির মতো সুপরিচিত অনেকেই। দেশে এবং দেশের বাইরে রয়েছে অসংখ্য স্রোতা। প্রযুক্তির উত্কর্ষতা মোবাইল অ্যাপস এবং ইন্টারনেট সারা বিশ্বে ছড়িয়ে দিয়েছে সামিয়ার কণ্ঠস্বর। 

আরজের পাশাপাশি রেডিওতে নাটক-এর স্ক্রিপ্ট লেখা শুরু তার। এখন পর্যন্ত, ছয়টি রেডিও নাটক-এর স্ক্রিপ্ট এবং পরিচালক হিসেবে কাজ করেছেন, এর মাঝে শিশুদের জন্য লিখিত নাটক ‘আহ্বান’, অন্যতম শ্রোতা প্রিয় একটি কাজ।

লিখতে ভালোবাসেন সব সময়, প্রিন্ট কিংবা অনলাইন মিডিয়ায় লিখছেন আর্টিকেল, বুক রিভিউ করেছেন অসংখ্য বই-এর এবং ইদানিং কালে তাকে টানছে অনুবাদ। অন্যতম প্রিয় লেখক এরিক সেগাল, গ্যাব্রিয়াল গার্সিয়া মার্কেজ। তাদের দুইটি উপন্যাসের অনুবাদের কাজ প্রায় শেষের পথে। সব কিছুর পরেও সামিয়া কালামের কাছে আর জে এবং প্রোডিউসার পরিচয়টি সবচেয়ে প্রিয় এবং আপন। 

 

 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৩০ এপ্রিল, ২০২১ ইং
ফজর৪:০৪
যোহর১১:৫৬
আসর৪:৩২
মাগরিব৬:২৯
এশা৭:৪৭
সূর্যোদয় - ৫:২৫সূর্যাস্ত - ০৬:২৪
পড়ুন