ফারজানার ডিজাইন
০৪ জুন, ২০১৮ ইং
ফারজানার ডিজাইন
১৯৯৮ শুরুর দিকে পেশাদার পোশাক ডিজাইনার হিসেবে কাজ করার সিদ্ধান্ত নেন ডিজাইনার ফারজানা মালিক। এ ইচ্ছা থেকেই সেই সময় পপিস কালেকশান নামে একটি ফ্যাশন হাউস খোলেন সুগন্ধা আবাসিক এলাকার নিজ বাসায়। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই তার পোশাকের ডিজাইনের খ্যাতি ছড়িয়ে পড়ে

  আজিজুল কদির

 

সামনেই ঈদ, শুরু হয়ে গেছে পোশাক কেনার ধুম। এর মধ্যে ফ্যাশন সচেতন নারীরা খুঁজছেন নতুন ও রুচিশীল ডিজাইনের পোশাক। অনেকেই হানা দিচ্ছেন ফ্যাশন হাউসগুলিতে। আবার ফ্যাশন হাউস আর ডিজাইনাররাও প্রদর্শনীর মাধ্যমে তুলে ধরছেন তাদের সম্ভার। এর ব্যতিক্রম নয় ডিজাইনার ফারজানা মালিকের ফ্যাশন হাউজও।

মূলত ফারজানা মালিক চার্টার্ড একাউন্ট থেকে পাস করলেও পাশাপাশি নিজেকে একজন ফ্যাশন ডিজাইনার হিসেবে তৈরি করে নেন ধীরে ধীরে। নিত্যনতুন পোশাকের ডিজাইন করার প্রতি তার আগ্রহ ছিল বরাবর। কলেজ জীবনে তিনি তার নিজের পোশাকের ডিজাইন নিজেই করতেন, পরে এক সময় তিনি শুরু করেন তার কাছের বন্ধু-বান্ধব বা আত্মীয়-স্বজনের পোশাকের নিত্যনতুন ডিজাইন করার মধ্য দিয়ে।

১৯৯৮ শুরুর দিকে পেশাদার পোশাক ডিজাইনার হিসেবে কাজ করার সিদ্ধান্ত নেন ডিজাইনার ফারজানা মালিক। এ ইচ্ছা থেকেই সেই সময় পপিস কালেকশন নামে একটি ফ্যাশন হাউস খোলেন সুগন্ধা আবাসিক এলাকার নিজ বাসায়। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই তার পোশাকের ডিজাইনের খ্যাতি ছড়িয়ে পড়ে। হোটেল র্যাডিসন ব্লুতে ডিজাইনার ফারজানা মালিকের প্রদর্শিত পোশাকগুলোতে রঙের ব্যবহার ও ডিজাইনে যেন বাংলাদেশি নারীর চিরন্তন মনের রঙই ফুটে উঠেছে। এবারের পোশাকগুলোর ডিজাইনে আগামী ঈদের উত্সবমুখরতা খুব সহজেই টের পাওয়া যায়। গতকাল উক্ত পোশাক প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন কামরুন নাহার মালেক। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন প্রথম আলোর কবি কথাসাহিত্যিক বিশ্বজিত্ চৌধুরী, ডিজাইনার আহমেদ নেওয়াজ ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এম এ মালেক।

ডিজাইনার ফারজানা মালিক জানান, এসব পোশাকে পাশ্চাত্যের প্রভাব থাকলেও পোশাকগুলো কিন্তু তৈরি হয় এই দেশেরই শ্রম আর মেধা খরচ করে। এ প্রদর্শনীর ঈদ সংগ্রহ প্রদর্শীত পোশাকগুলোর মধ্যে যার সবগুলোতেই রয়েছে উজ্জ্বল রঙ আর বৈচিত্র্যের ছোঁয়া। উত্সব মাথায় রেখেই পোশাকগুলো নকশা করা হয়েছে, আর তাই এই পোশাকে অনেক রঙ আর বৈচিত্র্য খুঁজে পাওয়া যাবে।

তিনি যৌথভাবে পোশাক প্রদর্শনীতে অংশ নিয়েছেন যথাক্রমে ঢাকা ফ্যাশন উইক ২০১৩, ব্র্যান্ডিং চিটাগং ২০১৭-এর পোশাক প্রদর্শনী, চট্টগ্রামে ডিজাইনারস ফোরামের বৈশাখী উত্সব, উইভারস ফেস্টিভ্যাল ঢাকা ২০১৬-২০১৭ তে। এখানে উল্লেখযোগ্য পোর্ট সিটি ইউনিভার্সিটির ফ্যাশন ডিপার্টমেন্ট উদ্বোধনে অংশ নেওয়া। সম্প্রতি ঈদকে সামনে রেখে চট্টগ্রাম র্যাডিসন ব্লু’র লবিতে সম্পন্ন করলেন নিজের ডিজাইন করা দুইদিনব্যাপী প্রথম একক পোশাক প্রদর্শনীর।

ফারজানা মালিক এর নিজস্ব ডিজাইন করা পোশাকের মধ্যে আছে দেশি তাঁত, সুতি আর অ্যান্ডি কাপড়ের করা লেহেঙ্গা, শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ। এ পোশাকগুলো করা হয়েছে স্ক্রিনপ্রিন্ট, এপ্লিক, এমব্রয়ডারি আর লেইসের কারুকাজ। তাঁর পোশাকগুলোর নকশা বেছে নেওয়া হয়েছে উজ্জ্বল রঙ, ফুলেল সমারোহ, জারদৌসি, চুমকি ও পুঁতি ইত্যাদি। আবার গ্রীষ্মকাল বলে আরাম আর স্বস্তির বিষয়টির প্রতিও লক্ষ্য রাখা হয়েছে। উত্সব প্রদর্শনীর মূল বিষয়বস্তু হলেও সাধারণ ও আটপৌরে ভাবটিকেও এড়িয়ে যাওয়া হয়নি।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৪ জুন, ২০২০ ইং
ফজর৩:৪৪
যোহর১১:৫৭
আসর৪:৩৭
মাগরিব৬:৪৬
এশা৮:০৯
সূর্যোদয় - ৫:১০সূর্যাস্ত - ০৬:৪১
পড়ুন