মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক আছাদুজ্জামানের মৃত্যুবার্ষিকী আজ
ইত্তেফাক রিপোর্ট২৫ ডিসেম্বর, ২০১৪ ইং
মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, মাগুরা থেকে ৪ বার নির্বাচিত সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আছাদুজ্জামানের ২১তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। এ উপলক্ষে আওয়ামী লীগসহ তার অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন কোরআনখানি, মিলাদ মাহাফিল, শোকমিছিল, মরহুমের সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও আলোচনা সভার আয়োজন করেছে। এছাড়া মরহুমের মাগুরাস্থ বাসভবনে এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হবে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এবং বিশেষ অতিথি থাকবেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেন শিকদার।

আছাদুজ্জামান ১৯৩৫ সালের ১১ নভেম্বর মাগুরায় মহম্মদপুর উপজেলার মৌলভী জোকা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র অবস্থায় তিনি ভাষা আন্দোলনে অংশগ্রহণ করেন। ১৯৫৪ সালে ছাত্রজীবনে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হন। ১৯৬১ সালে তিনি মাগুরা বারে আইনজীবী হিসেবে যোগদান করেন। ১৯৬২র ছাত্র আন্দোলন, ৬৬র ছয় দফা আন্দোলন, ৬৯-এর গণ-অভ্যুত্থানসহ বিভিন্ন আন্দোলনে তিনি সামনে থেকে নেতৃত্ব দেন। এ সময় তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী এবং মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর সংস্পর্শে আসেন।

১৯৬৫ সালে তিনি মাগুরা মহাকুমা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ১৯৭৬ সাল থেকে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন। ১৯৭০ সালের নির্বাচনে তিনি পূর্ব পাকিস্তান প্রদেশিক পরিষদের এমপিএ নির্বাচিত হন। ১৯৭২-এ গণ পরিষদ সদস্য নির্বাচিত হন। এ সময় তিনি শ্রেষ্ঠ তরুণ পার্লামেন্টিয়ান হিসেবে জাতীয় পুরস্কার লাভ করেন। ১৯৭৯, ১৯৮৬ ও ১৯৯১ সালে তিনি জাতীয় সংসদের সদস্য নির্বাচিত হন। মরহুম আছাদুজ্জামানের মেয়ে কামরুল লায়লা জলি বর্তমানে সংরক্ষিত মাগুরা-যশোর মহিলা আসনের সংসদ সদস্য ও তৃতীয় ছেলে সাইফুজ্জামান শিখর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একান্ত সহকারী সচিব হিসেবে কর্মরত আছেন।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২৫ নভেম্বর, ২০২০ ইং
ফজর৫:১৭
যোহর১১:৫৯
আসর৩:৪৩
মাগরিব৫:২২
এশা৬:৪০
সূর্যোদয় - ৬:৩৮সূর্যাস্ত - ০৫:১৭
পড়ুন