বিভিন্ন স্থানে প্রার্থিতা প্রত্যাহার
ইত্তেফাক ডেস্ক০৩ মার্চ, ২০১৬ ইং
প্রথম দফা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে গতকাল বুধবার ছিল বিভিন্ন পদে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন। চেয়ারম্যান, সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে বিভিন্ন স্থানে আওয়ামী লীগ, বিএনপির বিদ্রোহীসহ অনেকেই তাদের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেন। ইত্তেফাক প্রতিনিধি ও সংবাদদাতাদের পাঠানো খবর।

খুলনা:খুলনা জেলার ডুমুরিয়া উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে ১৫ জনের। তারা সবাই স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলেন। বর্তমানে এ উপজেলায় প্রার্থী রয়েছে ৬২ জন। ফুলতলা উপজেলার ৪টি ইউনিয়নে ৭ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির ৩ জন করে বিদ্রোহী প্রার্থী ও একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী।  বটিয়াঘাটা উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে ৬জন চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এখন প্রার্থী রয়েছেন ৪৩ জন। পাইকগাছা উপজেলায় প্রত্যাহার করেছেন ৭ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী। এর মধ্যে জামায়াতের ২ জনসহ বাকিরা স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলেন। বর্তমানে পাইকগাছার ১০টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থীর সংখ্যা ৪২ জন। কয়রা উপজেলায় ৩ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এর মধ্যে দুই জন আওয়ামী লীগের এবং ১ জন জাতীয় পার্টির বিদ্রোহী প্রার্থী। বর্তমানে কয়রা উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৪৪ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী। রূপসা উপজেলায় ৪ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের ৩ ও জাতীয় পার্টির (এ) ১ জন বিদ্রোহী প্রার্থী ছিলেন। তেরখাদা উপজেলায় ৫ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এরা সবাই স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলেন।

কাউখালী (পিরোজপুর): কাউখালীতে আওয়ামী লীগের ৬ জন ও বিএনপি’র একজন বিদ্রোহীসহ ৮ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এ ছাড়া শিয়ালকাঠী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল হওয়ায় সেখানে এখন আওয়ামী লীগের কোনো প্রার্থী নেই। এখন উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে ২৬ জন প্রার্থী। প্রত্যাহারকারী হলেন, ৩ নং কাউখালী সদর ইউনিয়নে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট এম নুরুল হক, সাধারণ সম্পাদক তালুকদার মো. দেলোয়ার হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান পল্টন, কৃষক লীগের উপজেলা আহ্বায়ক চন্দন কুমার দে, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সুনীল কুন্ডু, যুবলীগের সহ-সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম টিটুসহ মোট ৬ জন। বিএনপি’র বিদ্রোহী প্রার্থী শেখ মিরাজ আহম্মেদ এবং ২নং আমরাজুড়ি ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী স্বাগত রায়।

কাঠালিয়া (ঝালকাঠি):কাঠালিয়া উপজেলায় মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে গতকাল বুধবার আমুয়া ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. জাকির হোসেন শাহীন মোল্লা, কাঠালিয়া সদর ইউনিয়নের জেপি সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. এনায়েত হোসেন খসরু এবং আওরাবুনিয়া ইউনিয়নের ৪,৫,৬ নং সংরক্ষিত ওয়ার্ডের মরিয়ম বেগম, সাধারণ সদস্য চেচরীরামপুরের ৫নং ওয়ার্ডের মো. ইউনুচ সরদার, ৭ নং ওয়ার্ডের শাহনাজ বেগম, আমুয়া ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের কৃষ্ণ কান্ত চন্দ, ৭নং ওয়ার্ডের মো. আবুল হোসেন ও মো. ওহাব মল্লিক ও শৌলজালিয়া ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের মো. মনির হোসেন তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন।

বাবুগঞ্জ (বরিশাল):বাবুগঞ্জ উপজেলার ৬টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৫ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী ও সাধারণ সদস্য ১৯ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারকারী চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন, ১নং আগরপুর ইউনিয়নের জাতীয় পার্টির আনিচুর রহমান হিমু, বিএনপি’র বিদ্রোহী প্রার্থী আ. মালেক সিকদার, ৩নং দেহেরগতি ইউনিয়নের জাতীয় পার্টির প্রার্থী নজরুল ইসলাম মামুন, ৫ নং রহমতপুর ইউনিয়নের মোস্তফা কামাল সিকদার, ৪ নং চাঁদপাশা ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মো. সেলিম হোসেন স্বপনসহ উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে সাধারণ সদস্য পদে ১৯ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৩ মার্চ, ২০২১ ইং
ফজর৫:০৪
যোহর১২:১১
আসর৪:২৪
মাগরিব৬:০৫
এশা৭:১৮
সূর্যোদয় - ৬:১৯সূর্যাস্ত - ০৬:০০
পড়ুন