বড়াইগ্রামে খ্রিষ্টান ব্যবসায়ী খুন
জড়িত সন্দেহে একজন গ্রেফতার
নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার বনপাড়ায় খ্রীষ্টান ব্যবসায়ী সুনীল দানিয়েল গমেজকে (৬০) নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যার ঘটনার সাতদিন পরও পুলিশ হত্যাকাণ্ডের কোনো ক্লু উদঘাটন করতে না পারায় রবিবার সকাল ১১টা থেকে দুপুর সোয়া ১২টা পর্যন্ত মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন করেছেন স্থানীয় প্রায় ৫ হাজার খ্রীষ্টান নারী-পুরুষ। পরে তারা অবিলম্বে খুনিদের গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছেন। এদিকে গতকাল বিকালে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে নিহত সুনীল গমেজের বাসার অপর ভাড়াটিয়া বনপাড়া এলাকার রফিকুল ইসলামের স্ত্রী মনোয়ারা খাতুন মনিকে (৩৫) আটক করেছে ডিবি পুলিশ।

নিহত সুনীল গমেজের বাড়িতে বিএনপির প্রতিনিধি দল

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার পাঠানো বিশেষ প্রতিনিধি দল গতকাল দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন এবং নিহত সুনীল গমেজের (৬০) স্বজনদের সাথে সাক্ষাত্ করেন। এসময়ে প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বদানকারী বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ও সাবেক মন্ত্রী নিতাই রায় চৌধুরী বলেন, দেশে একের পর এক সংখ্যালঘু খুন হচ্ছেন; কিন্তু সরকার একটি ঘটনারও রহস্য উদঘাটন করতে পারেনি। উল্টো ব্যর্থতার দায় নিজেদের কাঁধে না নিয়ে ঘটনা ঘটার সাথে সাথে বিএনপি-জামায়াতের উপর দোষ চাপিয়ে তদন্তকে প্রভাবিত করছে। দেশের সর্বোচ্চ ব্যক্তি বলছেন তারা জানেন কারা এগুলো ঘটাচ্ছে। “জানেনই যদি তাহলে তাদেরকে আটক করুন; কিন্তু তাও করছেন না।”  নিতাই রায় বলেন, যেহেতু সংখ্যালঘুসহ টার্গেট কিলিং একটি জাতীয় সমস্যা, তাই জাতীয় ঐকমত্যের ভিত্তিতে এ সমস্যার সমাধান করতে হবে। এ সময় প্রতিনিধি দলের সদস্যরা নিহত সুনীল গমেজের স্ত্রী-সন্তানদের খোঁজ নেন ও তাদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৩ জুন, ২০২১ ইং
ফজর৩:৪৩
যোহর১১:৫৯
আসর৪:৩৯
মাগরিব৬:৪৯
এশা৮:১৪
সূর্যোদয় - ৫:১১সূর্যাস্ত - ০৬:৪৪
পড়ুন