নরসিংদীতে জমি বিক্রির কথা বলে ১০ লাখ টাকার প্রতারণা
g নরসিংদী প্রতিনিধি০৮ আগষ্ট, ২০১৬ ইং
মালিক সেজে জমি বিক্রির কথা বলে নরসিংদীর পলাশে সংঘবদ্ধ জালিয়াত চক্র একটি কোম্পানির ১০ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। ‘বাংলা ফোন লিমিটেড’ নামের ঐ কোম্পানি কারখানা তৈরির জন্য পলাশে জমি কেনার উদ্যোগ নেয় এবং ‘মালিকের’ সাথে আলাপ করে জমির দর-দামও ঠিক করে এবং অগ্রিম মূল্য বাবদ ১০ লক্ষ টাকাও প্রদান করে। কিন্তু টাকা হাতে পেয়েই পালিয়ে যায় জমির ‘মালিক’ ও তার সাথে যুক্ত দালালেরাও। পরে খবর পাওয়া যায় এদের কেউ জমির মালিক নয় সবাই সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্রের সদস্য। শুধু বাংলা ফোন লিমিটেড নয়, এদের প্রতারণার শিকার অনেক মানুষ। নরসিংদীর স্থানীয় এবং আশেপাশের বহু ব্যক্তি এবং প্রতিষ্ঠান তাদের হাতে সর্বস্বান্ত হয়েছে বলে অনুসন্ধানে জানা গেছে।

সম্প্রতি বাংলা ফোন লিমিটেডের সঙ্গে প্রতারণার পরে এই চক্রের অন্যতম তিনজনকে শনাক্ত করা হয়েছে। এরা হলো— পলাশ উপজেলার কাজৈর গ্রামের আবদুর রশিদের ছেলে মজিবুর রহমান, সান্তানপাড়ার মাজহারুল হকের ছেলে মজিবুল হক আনন এবং আজাদ হোসেনের ছেলে আলিফ হোসেন দিপক।

পলাশ থানা সূত্র জানায়, এই তিনজনের নামে নরসিংদীর আদালতে টাকা আত্মসাত্ এবং জালিয়াতির পৃথক দুটি মামলা করে ঐ কোম্পানি। মামলাটি আমলে নিয়ে গত ২১ জুলাই তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়। গত ২৬ জুলাই র্যাব মজিবুল হক আননকে গ্রেফতার করে। তাকে গ্রেফতারের পর জনমনে কিছুটা স্বস্তি ফিরে আসে। তবে অন্যরা এখনো ধরা-ছোঁয়ার বাইরে।

স্থানীয়রা বলছেন, এদেরকে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা হলে সহজ-সরল মানুষ আর প্রতারিত হবে না। মামলার বাদী রুহুল মোমিন চৌধুরী বলেন, ‘জমির আসল মালিককে আড়ালে রেখে প্রতারকচক্র নিজেরাই মালিক সেজে টাকা আত্মসাত্ করে। তিনি অভিযোগ করেন, ‘আসামিরা স্থানীয়ভাবে ক্ষমতাসীন দলের সঙ্গে যুক্ত থাকায় পুলিশ তাদের গ্রেফতার করছে না।’

 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৮ আগষ্ট, ২০১৯ ইং
ফজর৪:০৯
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪১
মাগরিব৬:৪০
এশা৭:৫৯
সূর্যোদয় - ৫:৩১সূর্যাস্ত - ০৬:৩৫
পড়ুন