প্রকাশিত সংবাদ প্রসঙ্গে
১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং
গত ২৩ আগস্ট ‘সিংগাইরে মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইয়ে ব্যাপক অনিয়ম’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ করেছেন মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোঃ আবুল বাশার।

প্রতিবাদপত্রে বলা হয়, উক্ত সংবাদে স্বাধীনতা সংগ্রামের কতিপয় বীর মুক্তিযোদ্ধা সম্পর্কে যে তথ্য দেওয়া হয়েছে, তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। সিংগাইর উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইয়ে কোনো ধরনের অনিয়ম হয়নি। এই অঞ্চলসহ পুরো মানিকগঞ্জ জেলা থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য সংরক্ষিত কোটা অনুযায়ী বিগত ৫ বছরে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের ৩০০ জন প্রাথমিক শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন। পুলিশ বাহিনীতে নিয়োগ পেয়েছেন প্রায় ২১০ জন। অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে নিয়োগেও মুক্তিযোদ্ধাদের ৩০ শতাংশ কোটা সঠিকভাবে মেনে চলার ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ অত্যন্ত সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করে আসছে। সিংগাইর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারসহ  মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কর্মকর্তাদের কারও বিরুদ্ধে কখনও কোনো দুর্নীতির অভিযোগ ওঠেনি। তাছাড়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কমিটি গঠনেও তাদের কোনো হাত নেই। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় এই কমিটি গঠন করে দেন। সুতরাং উক্ত সংবাদের প্রতিবেদক সম্পূর্ণ মনগড়া তথ্যের উপর ভিত্তি করে প্রতিবেদনটি তৈরি করেছেন। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাই।

প্রতিবেদকের বক্তব্য:

আমি উপযুক্ত তথ্য প্রমাণ সাপেক্ষে উক্ত প্রতিবেদনটি তৈরি করেছি। যে সব মুক্তিযোদ্ধাদের বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে প্রতিবেদনটি তৈরি করা হয়েছে তাদের বক্তব্যের সপক্ষে যাবতীয় প্রমাণাদি তথা জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল (জামুকা)-এর চেয়ারম্যান/মন্ত্রী বরাবর দেওয়া অভিযোগপত্রের কপি ও বক্তব্যের রেকর্ড আমার কাছে আছে। তাদের বক্তব্য এবং অভিযোগপত্রের উপর ভিত্তি করেই আমি প্রতিবেদনটি তৈরি করেছি। এতে আমার নিজস্ব কোনো মতামত বা বক্তব্য নেই। এছাড়া যাদের নামে অভিযোগ করা হয়েছিল তাদের সবার বক্তব্যও উক্ত প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছিল।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং
ফজর৪:২৭
যোহর১১:৫৬
আসর৪:২৩
মাগরিব৬:১০
এশা৭:২৩
সূর্যোদয় - ৫:৪৪সূর্যাস্ত - ০৬:০৫
পড়ুন