চন্দনাইশে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরীক্ষার প্রশ্নপত্রে ভুল
২৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং
ক্ষুব্ধ শিশু শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা

g  চন্দনাইশ (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা

চন্দনাইশ উপজেলায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বার্ষিক পরীক্ষার বিভিন্ন প্রশ্নপত্রে ভুল থাকায় বিভিন্ন মহলে ক্ষোভের সৃষ্ঠি হয়েছে। প্রশ্নপত্রে বানান ভুলসহ একই প্রশ্ন দুইবার থাকায় বিভ্রান্ত শিশু শিক্ষার্থীসহ অভিভাবকরা। তাছাড়া প্রশ্নপত্রে পাঠ্যবই বহির্ভূত প্রশ্ন ছিল বলেও অভিযোগ করেন সংশ্লিষ্টরা।

জানা যায়, উপজেলায় ৯২টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এসব বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বার্ষিক পরীক্ষায় ২য় শ্রেণির গণিত বিষয়ের প্রশ্নপত্রের ৩নং প্রশ্ন ছিল ‘বাংলা বার মাসের নাম লেখো’। আবার একই প্রশ্ন ৫ নম্বর পুনরায় করা হয়েছে। একই শ্রেণির ইংরেজি পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের ৭নং প্রশ্ন Translate into English অর্থাত্ ইংরেজি শব্দকে আবার ইংরেজিতে করার কথা লেখা হয়েছে। এসব ভুল ছাড়াও ৩য়, ৪র্থ শ্রেণির ইংরেজি, গণিত পরীক্ষার প্রশ্নপত্রেও ভুল ছিল।

পাঠানদণ্ডী উজির আলী এবং দক্ষিণ গাছবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর অভিভাবক কাজী বোরহান উদ্দিন ও আবুল ফজল জানান, সরকার শিক্ষার গুণগত মান উন্নয়নের জন্য নিরলস কাজ করে গেলেও কতিপয় অসাধু ব্যক্তির অবহেলা ও দায়িত্বহীনতার কারণে তা ভেস্তে যেতে বসেছে। শিক্ষকদের কাছ থেকে এমন ভুল হওয়া খুব দুঃখজনক।

এ ব্যাপারে চন্দনাইশ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাস্টার আজিজুল হকের সাথে আলাপকালে তিনি ইত্তেফাককে প্রশ্নপত্রে ভুলের কথা স্বীকার বলেন, আমরা শিক্ষকরা যদি ভুল করি তাহলে শিশুদের কি শিক্ষা দেব? এ বিষয়ে পরীক্ষা পরিচালনা কমিটিই ভালো বলতে পারে।

চন্দনাইশ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সেলিনা আক্তারের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, দুই-তিন বার প্রুফ কপি দেখা হয়েছিল। তারপরও কিভাবে কয়েকটি বিষয়ের প্রশ্নপত্রে ভুল ছাপানো হয়েছে তা খতিয়ে দেখা হবে।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২৭ নভেম্বর, ২০২১ ইং
ফজর৫:১৮
যোহর১২:০০
আসর৩:৪৪
মাগরিব৫:২৩
এশা৬:৪১
সূর্যোদয় - ৬:৩৯সূর্যাস্ত - ০৫:১৮
পড়ুন