মানিকগঞ্জে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবের সঠিক ব্যবহার হচ্ছে না
০৬ অক্টোবর, ২০১৮ ইং

 শহিদুল ইসলাম সুজন, মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি

শিক্ষার্থীদের কম্পিউটার প্রশিক্ষণ প্রদান ও ইন্টারনেট ব্যবহারে দক্ষ করে তুলতে মানিকগঞ্জের বিভিন্ন স্কুলে স্থাপন করা শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবগুলো যথাযথভাবে কাজে লাগানো হচ্ছে না বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

স্কুল থেকেই শিক্ষার্থীদের কম্পিউটার ও ইন্টারনেট ব্যবহারে পারদর্শী করে তুলতে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তর মানিকগঞ্জের ৭টি উপজেলায় ৩২টি শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন করে।  ২০১৬ সালের ১৩ আগস্ট প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে প্রথমপর্যায়ে মানিকগঞ্জে ২৫টি উচ্চবিদ্যালয়ে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব উদ্বোধন করেন। পরে আরো ৭টি ল্যাব স্থাপন করা হয়। প্রতিটি ল্যাবে ল্যাপটপ, প্রজেক্টর, বড় ডিসপ্লে­সহ আধুনিক সরঞ্জাম দেওয়া হয়। কিন্তু ২ বছর পার হতে চললেও ল্যাবগুলো যথাযথভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে না। জানা গেছে, ল্যাবগুলো প্রতিদিন খোলা হয় না। প্রথম শ্রেণি থেকে ষষ্ঠ শ্রেণি পর্যন্ত সিলেবাসে আইসিটি থাকলেও কোনো কোনো শিক্ষার্থী ল্যাপটপ চালু ও বন্ধ করতেও পারে না। কেউ কেউ ইংরেজি লিখতে পারলেও ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারে না। বেশির ভাগ ল্যাবে গিয়ে দেখা যায় এর কার্যক্রম বন্ধ।

সাটুরিয়া উপজেলার দীঘুলিয়া ইউনিয়নে কর্নেল মালেক উচ্চ বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, সব ক্লাসে ক্লাস চললেও ল্যাব বন্ধ। সংবাদকর্মীদের আগমন টের পেয়ে দ্রুত ল্যাব চালু করতে মরিয়া হয়ে ওঠেন শিক্ষকরা। শিক্ষকরা নিয়মিত ক্লাস হয় দাবি করলেও শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবে ক্লাস নেওয়ার কোনো পরিবেশ লক্ষ্য করা যায়নি। শিক্ষার্থীরাও অভিযোগ করেন যে, সেখানে কোনো ক্লাস হয় না।

এ ব্যাপারে কর্নেল মালেক উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রী রেশমা আক্তার জানান, আমি এ বছর ল্যাবে মাত্র ৪/৫টি ক্লাস পেয়েছি। একই ক্লাসের মিথিলা আক্তার বলেন, বিগত এক মাসে আমরা ডিজিটাল ল্যাবে কোনো ক্লাস করতে পারিনি। তারপরও ব্যক্তিগত উদ্যোগে কম্পিউটারে টাইপ করা শিখতে পারলেও ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারি না।

একই উপজেলার ফুকুরহাটি-কান্দপাড়া মজিবর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র হূদয় মৃধা বলেন, আমরা আর কয়েক মাস পর স্কুল থেকে বিদায় নেব, অথচ আজকে প্রথম শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবে আসলাম। আমি ল্যাপটপ চালু বা বন্ধ করতে পারি না। মানিকগঞ্জ জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস থেকে জানা যায়, বর্তমানে মানিকগঞ্জ সদরে ৬টি, দৌলতপুরে ৬টি, হরিরামপুরে ৬টি, সাটুরিয়ায় ৪টি, সিংগাইরে ৪টি, ঘিওরে ৩টি এবং শিবালয়ে ৩টি শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব রয়েছে।

জানা গেছে, এসব ল্যাবে নিয়মিত ক্লাস না হওয়ায় পড়ে থেকে অনেক ল্যাপটপ ইতোমধ্যে নষ্ট হয়ে গেছে।  আবার কোনো কোনো শিক্ষক ল্যাপটপ বাড়িতে নিয়ে ব্যবহার করছেন বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মানিকগঞ্জ জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. ফরিদুল ইসলাম বলেন, কোনো ল্যাব যদি সঠিকভাবে ব্যবহার করা না হয় তাহলে সেই বিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৬ অক্টোবর, ২০২১ ইং
ফজর৪:৩৬
যোহর১১:৪৭
আসর৪:০৩
মাগরিব৫:৪৫
এশা৬:৫৬
সূর্যোদয় - ৫:৫১সূর্যাস্ত - ০৫:৪০
পড়ুন