ভালোবাসা রান্নাবান্না
০৮ জুন, ২০১৫ ইং
l আহসান রনি l

 

যখন মা বাসায় কিছু রান্না করতেন তার সাথে ঘুরঘুর করতেন সাবিনা ইয়াসমিন। মায়ের রান্না দেখে দেখেই নিয়েছেন রান্নার প্রথম পাঠ। বাবা আর্মিতে ছিলেন বিধায় ছোটবেলা কেটেছে ক্যান্টনমেন্টে। সেখানেই পড়াশোনা, সেখানেই ঘোরাফেরা। সবকিছুর মধ্যে খুব বেশি ইনজয় করতেন যখন মায়ের কাছ থেকে নতুন কিছু রান্না শিখতেন। বড় হতে থাকলেন। ভর্তি হলে ইডেন কলেজে; বিষয় ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ। পড়াশোনা শেষে কোন ব্যাংকে চাকরি করার ইচ্ছা ছিল। কিন্তু অনার্সে পড়ার সময়ই বিয়ের পিঁড়িতে বসলেন। বিয়ের পরেও পড়াশোনা থামালেন না। ২০০৬ সালে শেষ হলো পড়াশোনা। সংসার সামলানোর পাশাপাশি ব্যাংকে চাকরি করা অনেক কষ্ট হয়ে যাবে এই চিন্তা করে আর ব্যাংকের দিকে পা মাড়াননি। তবে টাইনিটটস নামের একটি বাচ্চাদের স্কুলে পড়ানো শুরু করেন। বাসায় নিয়মিত রান্না করতেন। তার রান্নায় ভিন্ন স্বাদ পেত সবাই। তিনি গতানুগতির রান্না না করে তার প্রতিটি রান্নার আইটেমে একটু ভিন্ন কিছু নিয়ে আসার চেষ্টা করতেন। তবে রান্নাবান্না নিয়ে কিছু করবেন এরকম চিন্তা ছিল না কখনো। ২০১২ সালের দিকে সাবিনা তার এক্স ক্যাডেট স্বামীর ক্লাব ‘ক্যাডেট কলেজ ক্লাব’ আয়োজিত ‘রান্না প্রতিযোগিতা’-য় যোগদান করেন। সেখানে সবাইকে পেছনে ফেলে সেরার মুকুট মাথায় তোলেন তিনি। এরপরই রান্নার প্রতি একটু আলাদা দৃষ্টি দেওয়া শুরু করেন। এদিকে স্কুলের চাকরি ছেড়ে দিয়ে ট্রেনিং গ্রহণ করেন। সাবিনা জানালেন, বৈশাখী টিভির অনুষ্ঠান ‘ভিম রান্নাঘর’-এ গিয়ে দুইটি আইটেম রান্না করেছিলেন তিনি। যা সকলের অনেক প্রশংসা পেয়েছে। তিনি জানালেন, ডেজার্ট বানাতে তিনি খুব পছন্দ করেন এবং তার বানানো ডেজার্টের অনেক ভক্ত আছে। সবচেয়ে বেশি উদ্ধুদ্ধ হয়েছেন কার কাছ থেকে; এমন প্রশ্নের জবাবে সাবিনা বললেন, ‘টিএলসি টেলিভিশনের নাইজেলিয়া’স কিচেন আমাকে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন কিছু এক্সপেরিমেন্ট করতে উদ্ধুদ্ধ করে।’ সাবিনা জানালেন, তিনি এমন কিছু রান্নার আইটেম প্রস্তুত করতে চান যেগুলো বর্তমানে ব্যস্ত চাকরিজীবী নারীদের জন্য হবে। এই আইটেমগুলো তারা খুব অল্প সময়ের মধ্যে বানাতে পারবেন এবং রান্না হবে অনেক মজাদার। সংসারধর্মের পাশাপাশি রান্নাবান্নাকে একটু ভিন্নভাবে করার প্রচেষ্টায় প্রতিনিয়ত ব্যস্ত থাকতে চান এই রন্ধনশিল্পী।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৮ জুন, ২০২১ ইং
ফজর৩:৪৩
যোহর১১:৫৮
আসর৪:৩৮
মাগরিব৬:৪৭
এশা৮:১১
সূর্যোদয় - ৫:১১সূর্যাস্ত - ০৬:৪২
পড়ুন