পরিবর্তনের অঙ্গীকারে দিনাজপুরের স্বদেশ ফাউন্ডেশন
৩০ এপ্রিল, ২০১৮ ইং
পরিবর্তনের অঙ্গীকারে দিনাজপুরের স্বদেশ ফাউন্ডেশন
মেহেদী হাসান গালিব

আমাদের সমাজের গতিপ্রকৃতি সবসময় একটি বৈষম্যমূলক ছন্দ মেনে সামনের দিকে এগিয়ে চলে। ফলস্বরূপ সমাজের একটা দল সবসময়ই সুযোগসুবিধা ভোগ করে, আর অন্য আরেকটি দল থেকে যায় অবহেলার অন্ধকারে। কিন্তু অনেকেই এই বৈষম্যমূলক ছন্দটা মেনে নিতে পারেন না, সাহস করে সামনে এগিয়ে এসে এ ছন্দ ভেঙে রচিত করেন নতুন এক সাম্যের ছন্দ। অবহেলার চাদরে ঢাকা অসহায় মানুষেরা তখন অনুভব করেন তারা একা নন, তাদেরকে সহযোগিতা করার মতো অনেকেই আছেন আমাদের এই সমাজে। সেই মানুষদেরই একজন হলেন দিনাজপুরের মোনেম শাহরিয়ার চৌধুরী।

সময়টা ২০০৯ সালের ডিসেম্বর মাস। উত্তরাঞ্চলের জেলা হওয়ায় বরাবরের মতোই দিনাজপুরে শীত পড়েছিল অন্যান্য জেলার চেয়ে অনেক বেশি। প্রচণ্ড শীতে ব্যাহত হচ্ছিল জনগণের স্বাভাবিক জীবনযাপন। আর নিম্নবিত্ত মানুষদের কষ্টটা ছিল একাবারেই বর্ণনাতীত। নিম্নবিত্ত মানুষদের দুরবস্থা ভাবিয়ে তোলে মোনেমকে। ৪-৫ জন বন্ধুুকে সঙ্গে নিয়ে মোনেম শুরু করেন শীতবস্ত্র বিতরণ কার্যক্রম। এই কার্যক্রম সফল হওয়ার পর তাদের মাথায় সমাজের উন্নয়নে আরও ভালো কোনো কাজ করার চিন্তা আসে। আর এই চিন্তা থেকেই তারা প্রতিষ্ঠা করেন ‘স্বাধীন’ নামের একটি সংগঠন। পরবর্তীতে নাম পরিবর্তন করে তারা সংগঠনের নাম রাখেন ‘স্বদেশ ফাউন্ডেশন’।

স্বদেশ ফাউন্ডেশনের সূচনাকালে মোনেম ও তার বন্ধুরা কেবলমাত্র অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী। তাই শুরুর দিকে তাদের চলার পথে প্রতিবন্ধকতাও কম ছিল না। কিছু বন্ধুদের হাসাহাসি ও কটাক্ষ, অর্থনৈতিক প্রতিকূলতা সবকিছুরই সম্মুখীন হতে হয়েছিল তাদের। কিন্তু পরিবার থেকে মিলেছিল উত্সাহ ও অনুপ্রেরণা। তাই তাদেরকে কখনোই পিছু ফিরে তাকাতে হয়নি। তারা এগিয়ে গিয়েছিলেন আপন গতিতে।

এপর্যন্ত স্বদেশ ফাউন্ডেশন ব্লাড ডোনেশন ক্যাম্প ও মাদকবিরোধী কর্মসূচি পালন করেছে। পাশাপাশি প্রতি বছর ২১ ফেব্রুয়ারিতে ‘তারুণ্যে একুশ’ নামে একটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকেন তারা। স্কুুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের পাঠ্যবইয়ের পাশাপাশি অন্যান্য বই থেকে জ্ঞান অর্জনে উদ্বুদ্ধ করাই এই প্রতিযোগিতার মূল উদ্দেশ্য। এছাড়া স্বদেশ ফাউন্ডেশন দিনাজপুরের পাঁচটি স্কুুলে আয়োজন করে ‘জানি আমার মুক্তিযুদ্ধ :দিনাজপুর’ নামের একটি কুইজ প্রতিযোগিতা। নিজেদের এলাকার মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস সকলের মাঝে ছড়িয়ে দেওয়াই হলো এই প্রতিযোগিতার লক্ষ্য।

ইয়াং বাংলার আয়োজিত ‘জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড ২০১৭’ অর্জন স্বদেশ ফাউন্ডেশনের জন্য অনেক বড় একটি অনুপ্রেরণা। বর্তমানে স্বদেশ ফাউন্ডেশনে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে জড়িত আছেন দিনাজপুরের প্রায় ৩৫ জন সদস্য। তবে তারা স্বপ্ন দেখেন একদিন স্বদেশ ফাউন্ডেশনের কার্যক্রম শুধু দিনাজপুরেই সীমাবদ্ধ থাকবে না, ছড়িয়ে পড়বে পুরো বাংলাদেশে।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৩০ এপ্রিল, ২০২১ ইং
ফজর৪:০৪
যোহর১১:৫৬
আসর৪:৩২
মাগরিব৬:২৯
এশা৭:৪৭
সূর্যোদয় - ৫:২৫সূর্যাস্ত - ০৬:২৪
পড়ুন