চাকরি কিংবা উদ্যোক্তা যাই হতে চান ব্যবসায় শিক্ষাই অগ্রগণ্য
০৪ জুন, ২০১৮ ইং
চাকরি কিংবা উদ্যোক্তা যাই হতে চান ব্যবসায় শিক্ষাই অগ্রগণ্য
>> মিঠু মোস্তাফিজ

 

প্রথাগত ডিগ্রির গুরুত্ব ব্যাপকভাবে হ্রাস পেয়েছে কয়েক দশক ধরেই। বিশেষ করে উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ে এখন ব্যবসায় শিক্ষাকে গুরুত্ব সহকারে পড়ানো হচ্ছে। এক্ষেত্রে বিভিন্ন কমার্স বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠলেও মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করছে হাতেগোনা মাত্র দু-একটি প্রতিষ্ঠান! আর এ তালিকায় অগ্রগণ্য একটি নাম গুলশান কমার্স কলেজ। এরমধ্যে এদের ১১টি ব্যাচ অত্যন্ত সাফল্যের সঙ্গে উত্তীর্ণ হয়ে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়ন করছে। চলমান উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে কলেজটির ১২তম ব্যাচের ৮১৭ শিক্ষার্থী। ২০০৮ সালে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে ষষ্ঠ স্থান অধিকার করে রীতিমতো চমক সৃষ্টি করেছিল এ কলেজ। ২০১৭ সালের উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় ঢাকা বোর্ডের মেধাবৃত্তি তালিকায় মেয়েদের মধ্যে প্রথম স্থান অর্জন করেছেন এই কলেজের শিক্ষার্থী সালমা আক্তার ঝুমা। এদিকে ২০০৯ ব্যাচের শিক্ষার্থী রেজাউল করিম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস ডিপার্টমেন্ট থেকে প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান অর্জন করে বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উক্ত বিভাগেই শিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন। কলেজটির অধ্যক্ষ এমএ কালাম জানান, শুধু এই ব্যাচেই নয়, বিভিন্ন ব্যাচে আমাদের শিক্ষার্থীরা কৃতিত্বের স্বাক্ষর রেখেই চলছে। শিক্ষার্থীদের মেধা, কলেজের নিয়মশৃঙ্খলার প্রতি একাগ্রতা ও শিক্ষকদের নির্দেশনার প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকাসহ বিভিন্ন বিষয়কে ভালো ফলাফলের অন্যতম কারণ হিসেবেও তিনি উল্লেখ করেন। অধ্যক্ষ কালাম কলেজের শিক্ষার গুণগত মান উন্নত হওয়ায় এসব সাফল্য অর্জিত হয়েছে বলে মনে করেন।

কলেজটি গুণগতমানসম্পন্ন সর্বোন্নত শিক্ষাদানের লক্ষ্যে বিভিন্ন উদ্যোগ ও পরিকল্পনা নিয়ে অগ্রসর হচ্ছে। প্রাতিষ্ঠানিক লেখাপড়ার পাশাপাশি এখানে নানা রকম সামাজিক ও সাংস্কৃৃতিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করে। কলেজটি বর্তমানে শুধু উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ে প্রায় ২ হাজার শিক্ষার্থী নিয়ে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করছে। প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বিবিএ অনার্স কোর্স। কলেজটির EIIN ১৩১৯০৪।

এম এ কালাম বলেন, শুধু চাকরি নয়, উদ্যোক্তা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করতে হলেও ব্যবসায় শিক্ষায় জ্ঞান অর্জনের কোনো বিকল্প নেই। সময়ের দাবি মেটানোর তাগিদে বিশেষায়িত কলেজ হিসেবে গুলশান কমার্স কলেজ দেশের মানবসম্পদ উন্নয়নে খানিকটা হলেও ভূমিকা রেখে চলেছে। (যোগাযোগ :০১৫৩১-৩৪৩৮৭৮)। নিবেদিতপ্রাণ শিক্ষক-শিক্ষিকা কলেজটির উত্কর্ষ সাধনে প্রতিনিয়তই তাদের মেধা, প্রজ্ঞা ও শ্রম বিনিয়োগ করে চলেছেন।

 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৪ জুন, ২০১৯ ইং
ফজর৩:৪৪
যোহর১১:৫৭
আসর৪:৩৭
মাগরিব৬:৪৬
এশা৮:০৯
সূর্যোদয় - ৫:১০সূর্যাস্ত - ০৬:৪১
পড়ুন