সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ৩৪তম মৃত্যুবার্ষিকী পালন
ইত্তেফাক রিপোর্ট৩১ মে, ২০১৫ ইং
নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে গতকাল শনিবার যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হলো সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ৩৪তম মৃত্যুবার্ষিকী। মাজারে ফাতেহা পাঠ, দোয়া মাহফিল, দরিদ্রদের মাঝে খাবার ও পোশাক বিতরণ, আলোচনা সভা, স্বেচ্ছায় রক্তদানসহ বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করে দলটি। ভোরে বিএনপির কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে এসব কর্মসূচি শুরু হয়।

দুপুরে শেরেবাংলা নগরে জিয়ার মাজারে ফাতেহা পাঠ করেন বেগম খালেদা জিয়া। প্রথমে তিনি দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে জিয়ার মাজারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। এ সময় খালেদা জিয়া স্বামীর কবরের পাশে দাঁড়িয়ে ফাতেহা পাঠ করেন এবং ওলামা দলের আয়োজনে দোয়া মাহফিলে অংশ নেন। সেখানে ড্যাব আয়োজিত স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচির উদ্বোধন করেন খালেদা জিয়া। মাজারে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, যুগ্ম মহাসচিব মোহাম্মদ শাহজাহান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন, খায়রুল কবির খোকন প্রমুখ। সকাল থেকে শেরেবাংলা নগরের জিয়াউর রহমানের মাজারে হাজার হাজার নেতাকর্মী শ্রদ্ধা জানাতে সমবেত হন। খালেদা জিয়ার পুষ্পস্তবক অর্পণের পর মহানগর বিএনপি, যুবদল, শ্রমিক দল, কৃষক দল, মহিলা দল, জাসাস, ড্যাব, ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন (এ্যাব), ওলামা দল, মত্স্যজীবী দল, তাঁতীদল, ছাত্রদল, সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদসহ সমমনা বিভিন্ন সংগঠন আলাদাভাবে শহীদ নেতার কবরে শ্রদ্ধা জানায়। ২০ দলীয় জোটের পক্ষে জাগপা, লেবার পার্টি, ন্যাপ পুষ্পস্তবক অর্পণ করে।

২৫ স্থানে খাবার বিতরণ করলেন খালেদা জিয়া

খালেদা জিয়া মাজার থেকে বেরিয়ে দুপুর সাড়ে ১২টায় রাজধানীর শেরেবাংলা নগর টিঅ্যান্ডটি মাঠ থেকে খাবার বিতরণ শুরু করেন। ফার্মগেটের টিঅ্যান্ডটি মাঠ, মোহাম্মদপুর টাউন হল, ধানমন্ডি, আজিমপুর বটতলা, লালবাগের বালুর মাঠ, হাইকোর্ট মাজার, শান্তিনগর, মৌচাক, খিলগাঁও, শাহজাহানপুর, কলাবাগান, পল্টন, মতিঝিল, দয়াগঞ্জ, যাত্রাবাড়ী ফারুক সরণি, রায় সাহেবের বাজার, নয়াবাজার, ঢাকা জজকোর্ট, বংশালের নর্থ টাউন সড়কসহ মোট ২৫টি স্থানে দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ করেন খালেদা জিয়া। বিকাল ৫টায় রাজধানীর বংশালে খাবার বিতরণ শেষে তিনি গুলশানে নিজ বাসভবনে ফেরেন। তিনদিনের কর্মসূচির দ্বিতীয় দিন আজ রবিবার বেলা সাড়ে ১১টায় গুলশান থেকে খালেদা জিয়া দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণের উদ্দেশ্যে বের হবেন বলে জানা গেছে।

এই কর্মসূচিতে খালেদা জিয়ার সঙ্গে ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, লে. জে. (অব.) মাহবুবুর রহমান, দলের ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, এয়ার ভাইস মার্শাল (অব.) আলতাফ হোসেন চৌধুরী, চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, চেয়ারপাসনের উপদেষ্টা রুহুল আলম চৌধুরী, শাহজাহান ওমর, মুশফিকুর রহমান, এজেডএম জাহিদ হোসেন, আহমেদ আজম খান, যুগ্ম মহাসচিব মোহাম্মদ শাহজাহান, মাহবুবউদ্দিন খোকন, ফজলুল হক মিলন, আসাদুজ্জামান রিপন, খায়রুল কবির খোকন, নাজিম উদ্দিন আলম, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, গাজী মাজহারুল আনোয়ার, কবির মুরাদ, নুর মোহাম্মদ খান, মাসুদ আহমেদ তালুকদার, আবদুস সালাম আজাদ, হাবিবুর রহমান হাবিব, শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, হাবিবুল ইসলাম হাবিব, হাবীব উন নবী সোহেল, শামীমুর রহমান শামীম, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, আসাদুল করীম শাহিন, তাইফুল ইসলাম টিপু, এ বি এম মোশাররফ হোসেন, আজিজুল বারী হেলাল, সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, শেখ রবিউল আলমসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।

ধানমন্ডিতে খালেদার খাবার বিতরণে পুলিশের বাধা-লাঠিচার্জ

পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী ধানমন্ডির সুগন্ধা কমিউনিটি সেন্টারে দলের ধানমন্ডি শাখার সাধারণ সম্পাদক শেখ রবিউল আলমের উদ্যোগে দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ অনুষ্ঠানে পুলিশ বাধা ও লাঠিচার্জ করে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

জিয়ার মাজারে ছাত্রদলের হাতাহাতি

জিয়াউর রহমানের মাজারে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে গিয়ে ছাত্রদলের দু’গ্রুপের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। এতে একজন আহত হয়েছেন। জিয়ার সমাধি সংলগ্ন উদ্যানে বেলা পৌনে ১২টার দিকে এ হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি হাবীব উন নবী খান সোহেল পরিস্থিতি শান্ত করেন।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৩১ মে, ২০২১ ইং
ফজর৩:৪৪
যোহর১১:৫৬
আসর৪:৩৬
মাগরিব৬:৪৪
এশা৮:০৭
সূর্যোদয় - ৫:১১সূর্যাস্ত - ০৬:৩৯
পড়ুন