নাগরিকত্ব আইন নিয়ে আইনমন্ত্রী
এমন ধারা রাখা হবে না যাতে প্রবাসীরা ‘রাষ্ট্রহীন’ হয়ে পড়েন
ইত্তেফাক রিপোর্ট১৪ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭ ইং
আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেছেন, বর্তমান সরকারের আমলে এমন কোনো আইন হবে না, যা জনবান্ধব নয়। তাই বিদেশে বসবাসকারী বাংলাদেশিদের ক্ষতি হোক এমন কোনো আইন করা হবে না। তিনি বলেন, নাগরিকত্ব আইনে এমন কোনো ধারা রাখা হবে না, যাতে বিদেশে বসবাসকারী বাংলাদেশিরা (এনআরবি) ‘রাষ্ট্রহীন’ হয়ে পড়েন। এনআরবি’রা যে দেশের নাগরিকই হোক, বাংলাদেশে তাদের সব সম্পত্তির ওপর অধিকার থাকবে। গতকাল সোমবার বিকালে জাতীয় সংসদ ভবনে এক বৃটিশ প্রতিনিধি দলের সাথে বৈঠককালে আইনমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

আইনমন্ত্রী বলেন, প্রস্তাবিত নাগরিকত্ব আইন পাসের পরেও এনআরবিরা বাংলাদেশে ফিরে এসে স্থানীয় সরকার পদে নির্বাচন করতে পারবেন। রাজনৈতিক সংগঠন করারও সুযোগ পাবেন তারা। তবে তারা জাতীয় সংসদের সদস্য পদ ও রাষ্ট্রপতি পদে নির্বাচন এবং সুপ্রিম কোর্টের বিচারকসহ প্রজাতন্ত্রের কোনো কাজে নিয়োগ লাভ করতে পারবেন না। বিভিন্ন মহল থেকে আপত্তি ওঠায় নাগরিকত্ব আইনের খসড়ায় এ বিষয়ে সংশোধন আনা হয়েছে।

প্রতিনিধি দলে ছিলেন যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্ট সদস্য জনাথন অ্যাশওয়ার্থ, ড. রূপা হক এবং ডেম রোসি উইন্টারটন, যুক্তরাজ্যে লেবার ফ্রেন্ড অব বাংলাদেশ নামক সংগঠনের নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান হাউয়ার্ড ডাউবার, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবুল বাশার ও কাউন্সিলর আব্দুল হাই এবং যুক্তরাজ্যে ব্যবসায়িক নেতা শেখ অলিউর রহমান, মো. মুজিবুর রহমান, মো. আব্দুল খালিক ও ড. শাহ মো. রেজাউল করিম।

এদিকে জাতীয় পার্টি (জাপা) চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত এইচএম এরশাদের সংসদ ভবন কার্যালয়ে প্রতিনিধি দলটি জাপার মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদারের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। এসম জাপার আরো কয়েকজন সংসদ সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২১ ইং
ফজর৫:১৬
যোহর১২:১৩
আসর৪:১৭
মাগরিব৫:৫৭
এশা৭:১০
সূর্যোদয় - ৬:৩২সূর্যাস্ত - ০৫:৫২
পড়ুন