সিরাজুল আলম খানের ভূমিকা প্রশ্নে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে দ্বিমত
১১ মার্চ, ২০১৮ ইং
বাংলাদেশ জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ একাংশের সভাপতি শরীফ নুরুল আম্বিয়া ও সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক প্রধান এক যুক্ত বিবৃতিতে ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর ভাষণের পূর্বে ও পরে সিরাজুল আলম খানের ভূমিকা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শুক্রবার এক আলোচনা সভায় যে মন্তব্য করেছেন সেটির সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেছেন।

গতকাল শনিবার গণমাধ্যমে পাঠানো যুক্তি বিবৃতিতে আম্বিয়া ও প্রধান বলেন, মুক্তিযুদ্ধের প্রস্তুতিতে স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা সংগ্রামে স্বাধীন বাংলা নিউক্লিয়াস যে ধারাবাহিক প্রয়াস চালিয়েছে তার ফলশ্রুতিতেই ১৯৭১ সালের ১ মার্চ ইয়াহিয়ার ঔদ্ধত্যপূর্ণ বেতার বক্তৃতার সঙ্গে সঙ্গেই স্বতঃস্ফূর্তভাবে ছাত্র জনতা রাজপথে নেমে এসে স্বাধীনতার রণহুঙ্কার তোলে। ২৫ মার্চ পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর গণহত্যা শুরুর মুহূর্ত থেকেই মানুষ মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে।

বিবৃতিতে তারা বলেন, ষাটের দশক থেকে বঙ্গবন্ধু ও নিউক্লিয়াস সংগঠকদের মধ্যে বহু কথাবার্তা, অনুযোগ, তর্ক-বিতর্ক ঘটেছে- যা কখনো বঙ্গবন্ধু ও নিউক্লিয়াসের সম্পর্কে ন্যূনতম চিড় ধরায়নি। এগুলো কখনই ষড়যন্ত্র ছিল না।

আম্বিয়া-প্রধান আরো বলেন, তবে এটা অত্যন্ত আশার বিষয় যে, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে প্রধানমন্ত্রী স্বাধীন বাংলা নিউক্লিয়াস, নিউক্লিয়াসের সঙ্গে বঙ্গমাতা বেগম মুজিবের সম্পর্ক ও নিউক্লিয়াসের প্রাণপুরুষ সিরাজুল আলম খানের সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর অবিচ্ছেদ্য সম্পর্ক বিষয়ে আলোকপাত করছেন। আমরা আশা করি ইতিহাসের অজানা অধ্যায়গুলো উন্মোচন করতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ সৃষ্টির ইতিহাসে সবার ভূমিকার যথাযথ স্বীকৃতি দেবেন।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১১ মার্চ, ২০১৯ ইং
ফজর৪:৫৬
যোহর১২:০৯
আসর৪:২৭
মাগরিব৬:০৯
এশা৭:২১
সূর্যোদয় - ৬:১১সূর্যাস্ত - ০৬:০৪
পড়ুন