খুলনায় স্কুল-কলেজে ছুটির আমেজ
ক্লাস ছেড়ে স্টেডিয়ামে শিক্ষার্থীরা
৩০ এপ্রিল, ২০১৫ ইং
খুলনায় স্কুল-কলেজে ছুটির আমেজ
g এনামুল হক, খুলনা অফিস

হরতাল নেই, নেই অবরোধ। তারপরও খুলনার স্কুল-কলেজে বিরাজ করছে ছুটির আমেজ। প্রায় প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্লাস রুমই ফাঁকা। গত দুইদিন ধরে নগরীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ছাত্রদের উপস্থিতির হার অর্ধেকে নেমে এসেছে। তবে এ নিয়ে মোটেই দুশ্চিন্তায় নেই শিক্ষকরা। এর কারণ কী? খোঁজ নিতেই জানা গেল অধিকাংশ ছাত্রই স্কুল-কলেজ বাদ দিয়ে বাংলাদেশ-পাকিস্তান টেস্ট ম্যাচ দেখতে গেছে আবু নাসের স্টেডিয়ামে।

খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামের গ্যালারি গত দুইদিন ধরেই দর্শকে প্রায় পরিপূর্ণ। এই দর্শকদের বড় অংশই বয়সে তরুণ। এরা মূলত নগরীর বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে না গিয়ে তারা স্টেডিয়ামে খেলা দেখতে আসছেন। ছাত্রদের পাশাপাশি অনেক ছাত্রীও মাঠে গিয়ে খেলা দেখছেন। নিরন্তর সমর্থন যুগিয়ে চলেছেন সাকিব আল হাসান-মুশফিকুর রহীমদের।

মাঠে উপস্থিত এই তরুণ-তরুণীদের কাছে গিয়ে খোঁজ নিয়ে জানা যায়,  এই সব দর্শকদের অধিকাংশই সরকারি জিলা স্কুল, মডেল স্কুল, বি কে স্কুল, বর্ডার গার্ড স্কুল, নেভি স্কুল, পিএমজি স্কুল, খালিশপুর হাইস্কুল, খুলনা পোর্ট স্কুল, রোটারি স্কুল, নিউজপ্রিন্ট স্কুল, শহীদ তিতুমীর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, মেট্রোপলিটন পুলিশ লাইন স্কুল, খুলনা পাবলিক কলেজ, খুলনা মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, আযম খান সরকারি কমার্স কলেজ, সরকারি সিটি কলেজ, সরকারি সুন্দরবন আদর্শ মহাবিদ্যালয়সহ নগরীর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী। স্কুল-কলেজ ছাড়াও মাঠে বসে খেলা দেখছেন খুলনা মেডিক্যাল কলেজ, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় (খুবি) এবং খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) শিক্ষার্থীরাও। গতকাল বুধবার সকালে পূর্ব গ্যালারিতে বসে খেলা দেখছিলেন জিলা স্কুলের ছাত্র কাজী প্রশংসা, ইমন, নাঈম, দীপ, নোমান, শিহাব, মডেল স্কুলের ছাত্র রাব্বি, রুবেল, সোহেল, শাওন, জুয়েল, সবুজ, সিটি কলেজের ছাত্র কল্লোল, তৈমুর, মাহমুদ ও জয়।

উচ্ছ্বসিত অবস্থায় কাজী প্রশংসা বললেন, ‘পাকিস্তানের সঙ্গে বাংলাদেশের টেস্ট ম্যাচ দেখতে পেরে আমি দারুণ খুশি। এর আগে আমি ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও জিম্বাবুয়ের খেলাও দেখেছি। এখন বাংলাদেশ-পাকিস্তানের টেস্ট ম্যাচও দেখছি। আগামী তিনদিন আমি খেলা দেখতে মাঠে আসব।’

সিটি কলেজের ছাত্র কল্লোল, তৈমুর, মাহমুদ ও জয় জানান, ‘আমাদের সবারই ক্লাস চলছে। তারপরও বাংলাদেশ-পাকিস্তান টেস্ট ম্যাচ বলে কথা। তাই খেলা দেখতে না এসে পারলাম না। জানি আমাদের পড়াশোনার একটু ক্ষতি হচ্ছে। তবে এ ক্ষতি আমরা পুষিয়ে  নিতে পারব। কিন্তু এ খেলাতো আমরা আর দেখতে পারব না।’

খুলনা সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী রুমানা বলেন, ‘প্রথম দিন আমি খেলা দেখতে পারিনি। আজ (বুধবার) বহু কষ্টে একটি টিকিট ম্যানেজ (যোগাড়) করতে পেরেছি। মাঠে বসে খেলা দেখার মজাই আলাদা। যা আপনাদের বুঝাতে পারব না।’

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৩০ এপ্রিল, ২০১৯ ইং
ফজর৪:০৪
যোহর১১:৫৬
আসর৪:৩২
মাগরিব৬:২৯
এশা৭:৪৭
সূর্যোদয় - ৫:২৫সূর্যাস্ত - ০৬:২৪
পড়ুন