আবারও সেই সাকিব
১৫ জুন, ২০১৫ ইং
আবারও সেই সাকিব
g দেবব্রত মুখোপাধ্যায়

ফতুল্লা স্টেডিয়ামের পেছন দিকের রাস্তায় সম্প্রতিই সংস্কার কাজ হয়েছে। কাজ এখনও শেষ হয়নি বলে রাস্তা আটকে রাখা হয়েছে। নতুন ঢালাই করা পিচের ওপর কচুড়িপানা, পানি আর কাদা মিলে ভয়ানক এক অবস্থা তৈরি হয়েছে।

এই রাস্তা দিয়ে আর যাই হোক, চলাচল অন্তত অসম্ভব।

অথচ ওই কাদার মধ্যেই জনা দশেক স্কুল পড়ুয়া ছেলে অনেকক্ষণ ধরে দাঁড়িয়ে আছে। মাঠের ভেতরে ঢুকতে চায় তারা। কেন? এই টেস্টে আর কিসের আগ্রহ! খেলোয়াড়, কর্মকর্তা, সাংবাদিক; সবাই এই ফতুল্লা টেস্টে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছেন। এর মধ্যে এই বালকেরা কী দেখতে চায়?

চোখ বড় বড় করে একটা ছেলে বললো, ‘সাকিব ভাই উইকেটে আছে না! দেখবেন, রোদ উঠলেই সেঞ্চুরি মেরে দেবে।’

রোদ উঠলো, তবে সাকিব সেঞ্চুরির শতহাত কাছেও যেতে পারলেন না। মাত্র ৯ রান করে অশ্বিনের আরেকটি শিকার হিসেবে ফিরে এলেন। তবে এরই মাঝে রেকর্ড বইয়ে তোলপাড় করে ফেলেছেন। ৯ রানের এই ইনিংস খেলার ভেতর দিয়ে টেস্ট অলরাউন্ডারদের ৭ জনের এক সংক্ষিপ্ত তালিকায় নাম লিখিয়ে ফেললেন বাংলাদেশের এই অলরাউন্ডার। পৃথিবীর সপ্তম ক্রিকেটার হিসেবে ঘরের মাটিতে কমপক্ষে দুই হাজার রান ও একশ উইকেট শিকার করে ফেললেন সাকিব। এই তালিকায় তার সঙ্গী গ্যারি সোবার্স, ইয়ান বোথাম, কপিল দেব, জ্যাক ক্যালিস, ফ্লিনটফ ও ড্যানিয়েল ভেট্টোরি!

ওপরের নামগুলো দেখেই বোঝার কথা, কাদের পাশে আবারও নাম লেখালেন সাকিব। এই কয়েক জন অলরাউন্ডারকেই ক্রিকেট নামের খেলাটি সর্বকালের সেরা অলরাউন্ডারের তালিকায় রাখে!

এই টেস্টের প্রথম ইনিংসেই ঘরের মাটিতে বাংলাদেশের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে শততম টেস্ট উইকেট নিয়েছেন। টেস্টে সাকিবের উইকেটসংখ্যা এখন ১০৩টি। আর গতকাল দেশের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ঘরের মাটিতে পূর্ণ করলেন দুই হাজার রান। কার্যত ব্যক্তিগত ৫ রানে পৌঁছানো মাত্রই সাকিব এই বিরল মাইলফলক স্পর্শ করলেন। গতকাল যখন আউট হলেন তখন মোট রান তার ২০০৪।

সাকিবের ক্যারিয়ার রান এ পর্যন্ত ২৭৪১ এবং ক্যারিয়ারে টেস্ট উইকেট এখন পর্যন্ত ১৪৬টি। সাকিবের সামনে আসলে ক্যারিয়ারের বিবেচনায়ই আরও বড় অর্জনের হাতছানি আছে দ্রুতই। তিন হাজার রান ও দুইশ উইকেট শিকারীদের এলিট ক্লাবে ঢুকে যাওয়াটা এখন তার জন্য সময়ের অপেক্ষা মাত্র। এরই মধ্যে অবশ্য টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে কমপক্ষে ২৫০০ রান করা এবং ১০০ উইকেট শিকার করা মাত্র ২০ জন অলরাউন্ডারের একজন হয়ে আছেন তিনি।

এই সর্বকালের সেরা অলরাউন্ডারদের পাশে নাম তোলাটা সাকিবের জন্য অবশ্য নিত্যকার ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে গত বছরের খুলনা টেস্টে একই ম্যাচে সেঞ্চুরি করেছিলেন ও ১০ উইকেট নিয়েছিলেন। ফলে ৩১ বছর পর একই ম্যাচে সেঞ্চুরি করা ও ১০ উইকেট শিকার করার অলরাউন্ডার হিসেবে বিশ্বে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন তিনি। সাকিব আল হাসান বিরল এই কীর্তি করে নাম লিখিয়েছিলেন ইমরান খান ও ইয়ান বোথামের নামের পাশে।

এছাড়া সেই সিরিজেই ক্যারিয়ারে দুই বার করে একই ম্যাচে সেঞ্চুরি ও ৫ উইকেট নেয়া ইয়ান বোথাম, গ্যারি সোবার্স, জ্যাক ক্যালিস, মুশতাক মোহাম্মদের পাশে চলে গিয়েছিলেন সাকিব। সামনে আছেন শুধু ইয়ান বোথাম। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজে সাকিবের সামনে সুযোগ ছিল প্রথম অলরাউন্ডার হিসেবে ৩ ম্যাচ সিরিজে কমপক্ষে ২৫০ রান করা ও ২০ উইকেট শিকারের। মাত্র ২টি উইকেটের জন্য সেটা না হলেও দ্বিতীয় ক্রিকেটার হিসেবে কমপক্ষে ২৫০ রান করা ও কমপক্ষে ১৫ উইকেট শিকার করা দ্বিতীয় ক্রিকেটার তিনি। এর আগে মিশেল জনসন করেছিলেন কাজটা।

এসব পরিসংখ্যান হয়তো শেষ বিচারে শুধুই কাগজ-কলমের ব্যাপার। তবে প্রতিটা পরিসংখ্যান জ্বলজ্বল করে ঘোষণা করে—সর্বকালের সেরাদের একজনকেই এই মুহূর্তে দেখছে ক্রিকেট বিশ্ব।

ঘরের মাটিতে দুই হাজার রান ও একশ উইকেট

খেলোয়াড়             ম্যাচ     রান        গড়         উইকেট  গড়

ইয়ান বোথাম         ৫৯      ২৯৬৯    ৩৪.৯২    ২২৬     ২৭.৫৪     

কপিল দেব            ৬৫      ২৮১০    ৩৬.৯৭    ২১৯      ২৬.৪৯

জ্যাক ক্যালিস        ৮৮      ৭০৩৫    ৫৬.৭৩    ১৬৫     ৩০.৬১

ড্যানিয়েল ভেট্টোরি   ৫৭      ২৪৭০    ৩৩.৩৭    ১৫৯     ৩৭.১১

অ্যান্ডু ফ্লিনটফ        ৪০      ২০০৭    ৩৫.২১     ১০৯     ৩৬.১১

গ্যারি সোবার্স         ৪৪      ৪০৭৫    ৬৬.৮০    ১০৭      ৩৪.১২

সাকিব আল হাসান   ২৮      ২০০৪    ৪২.৬৩    ১০৩     ৩৪.৬৭

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৫ জুন, ২০২১ ইং
ফজর৩:৪৩
যোহর১১:৫৯
আসর৪:৩৯
মাগরিব৬:৪৯
এশা৮:১৪
সূর্যোদয় - ৫:১১সূর্যাস্ত - ০৬:৪৪
পড়ুন