আট ব্যাটসম্যান নিয়েও...
১৫ জুন, ২০১৫ ইং
আট ব্যাটসম্যান নিয়েও...
g স্পোর্টস রিপোর্টার

কাগজ-কলমের হিসাব ঠিক থাকলে একটা টেস্টে কম-বেশি সাড়ে চারশ’ ওভার খেলা হওয়ার কথা।

সেখানে ফতুল্লা টেস্টে পাঁচ দিন বসে খেলা হলো সাকল্যে ১৮৪.২ ওভার; ভারত এক ইনিংসে ১০৩.৩ ওভার এবং বাংলাদেশ দুই ইনিংসে ৮০.৫ ওভার। আর এর মধ্যেই এক লহমান জন্যে হলেও বাংলাদেশকে ঘিরে ধরেছিলো ইনিংস পরাজয়ের শঙ্কা। সে শঙ্কাটা হয়তো অনেক দূরের ব্যাপার ছিলো। কিন্তু অত্যন্ত নির্মম বাস্তবতা হচ্ছে সামনে এলো দুই দিনের সামান্য বেশি সময়ের এই খেলাতেই বাংলাদেশের ফলো অনে পড়া।

আট ব্যাটসম্যান নিয়েও বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসে ২৫৬ রানে অলআউট হওয়াটা আরও একবার প্রশ্ন তুলে দিয়েছে টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের ব্যাটিং সামর্থ নিয়ে।

৬ উইকেটে ৪৬২ রান তুলে তৃতীয় দিনের ‘ওভার নাইট’ স্কোরে ইনিংস ঘোষণা করে দিয়েছিলো ভারত। জবাবে চতুর্থ দিন যে সামান্য সময় খেলা হয়েছিলো, তাতে বাংলাদেশ ৩ উইকেটে ১১১ রান তুলেছিলেন। তামিম, মুমিনুলের আশা জাগিয়ে আউট এবং মুশফিকের সেট হতেই না পারাটা হতাশার ছিলো; শঙ্কার নয়। গতকাল ফিরলো সেই শঙ্কাটা।

গতকালও সকাল হওয়ার প্রায় সঙ্গে সঙ্গে ধুম বৃষ্টি। মনে হলো, এই দিনটাও ভেসে যাবে বৃষ্টির দাপটে। কিন্তু লাঞ্চের পরপর রীতিমতো রোদ হেসে উঠলো। আর একেবারে নির্ধারিত সময় পর্যন্ত মেঘ সেভাবে দানাই বাঁধলো না। ফলে পৌনে একটায় শুরু হলো পঞ্চম দিনের খেলা।

হাতে ৭ উইকেট নিয়ে এটুকু সময় দিব্যি শেষ করে ফেলার কথা বাংলাদেশের; এর মধ্যে ইমরুল ৫৯ রান করে ও সাকিব রানের খাতা না খুলে দিন শুরু করেছিলেন। এরপর সৌম্য, লিটন ও শুভাগত ছিলেন ব্যাটিংয়ের অপেক্ষায়। শুরুতে দুটো বাউন্ডারি মেরে সাকিব আভাস দিচ্ছিলেন, দিনটা তারা নিজেদেরই করে রাখবেন। কিন্তু কোথায় কী! রবিচন্দন অশ্বিনের অফস্পিন যেন কালান্তক হয়ে উঠলো।

আগের দিন ২ উইকেট নেয়া অশ্বিন গতকাল নিলেন আরও ৩ উইকেট। আর এই অফস্পিনারের ৫ উইকেট শিকারে মুখ থুবড়ে পড়লো বাংলাদেশের ইনিংস।

সাকিব ৯ রান করে ফিরে এলেন। এরপর অবশ্য সৌম্য সরকারকে নিয়ে আরেকটা জুটি করে এগোনোর চেষ্টা করছিলেন ইমরুল। কিন্তু ১৯৯ বলে ১২টি চারে সাজানো ইমরুলের ইনিংস শেষ হলো ৭২ রানে। আর সঙ্গে সঙ্গেই কার্যত পতন শুরু হয়ে গেলো বাংলাদেশী ব্যাটিংয়ের। ইমরুলের পরপরই সৌম্যও বিদায় নেন ৩৭ রান করে। তারপর আর গল্প বলতে ছিলো শুধু এক প্রান্তে লিটন সরকারের আগ্রাসী প্রতিরোধ। অভিসিক্ত এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ৪৪ রানের ইনিংস খেলে ফেরেন। তারপরও আটকানো যায়নি বাংলাদেশের পতন।

মাত্র ৬ রানের জন্য ফলোঅনে পড়ে বাংলাদেশ। যদিও দ্বিতীয় ইনিংসে কোনো উইকেট না হারিয়ে ২৩ রান তোলার পর দু’দল ড্র মেনে নেয়। কিন্তু এই ড্র নিশ্চয়ই ব্যাটিং ব্যর্থতায় প্রলেপ হতে পারে না।

এমনিতেই আট ব্যাটসম্যান নিয়ে টেস্ট খেলার মতো নেতিবাচক সিদ্ধান্তের সমালোচনা কম হয়নি। এর মধ্যে একজন নিখাদ অলরাউন্ডার সাকিব আছেন এবং আছেন দু’জন মাঝারি অলরাউন্ডার সৌম্য ও শুভাগত। তারপরও এতো লম্বা ব্যাটিং লাইন আপের কারণে স্পেশালিস্ট বোলার কমে যায় বলেই সমালোচনাটা ছিলো।

কিন্তু বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্টের পক্ষ থেকে সবসময়ই বলা হয়েছে, তারা নিরাপদ থাকতে চান। ব্যাটিং উইকেটে লম্বা ব্যাটিং লাইন আপ নিরাপদ কি না, সেটা অনেক পুরোনো তর্ক। কিন্তু টিম ম্যানেজমেন্টের তর্ক মেনে নিলেও বাস্তবতা বলছে, বিপর্যয়ের সময় আট ব্যাটসম্যান কোনো কাজে অন্তত দেয় না।

এখন বাংলাদেশ কোনটায় গুরুত্ব দেবে? ব্যাটিং লাইন আপ আরও লম্বা করা? নাকি সঠিক ব্যাটিং লাইন আপ থেকেই লম্বা রান পাওয়া!

স্কোর কার্ড

ভারত ১ম ইনিংস

৬ উইকেটে, ১০৩.৩ ওভারে ৪৬২ রান

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস             রান   বল   ৪    ৬

তামিম  স্টাম্পিং শাহা ব অশ্বিন   ১৯   ২১   ৩    ০

ইমরুল  স্টাম্পিং শাহা ব হরভজন      ৭২   ১৩৯   ১২         ০

মমিনুল  ক যাদব ব হরভজন সিং       ৩০   ৫৪  ৪ ০

মুশফিকুর ক রোহিত শর্মা ব অশ্বিন      ২     ৫    ০ ০

সাকিব  ক শাহা ব অশ্বিন         ৯     ১৫   ২    ০

সৌম্য  ব বরুন অরুন             ৩৭   ৫৪   ৭    ০

লিটন ক রোহিত শর্মা ব অশ্বিন    ৪৪   ৪৫   ৮    ১

শুভাগত  ক রোহিত শর্মা ব অশ্বিন      ৯     ২৫  ১  ০

তাইজুল ইসলাম অপরাজিত      ১৬   ৩১   ৩    ০

মোহাম্মদ শহীদ ক ধাওয়ান ব হরভজন ৬    ৯    ১  ০

জুবায়ের রান আউট (অশ্বিন/শাহা)      ০     ০    ০ ০

অতিরিক্ত  (লেগবাই ৯, নোবল ৩)      ১২

মোট রান (অল উইকেট; ৬৫.৫ ওভার) ২৫৬

উইকেট পতন : ১/২৭ (তামিম ইকবাল), ২/১০৮ (মুমিনুল হক), ৩/১১০ (মুশফিকুর রহিম), ৪/১২১ (সাকিব আল হাসান), ৫/১৭২ (ইমরুল কায়েস), ৬/১৭৬ (সৌম্য সরকার), ৭/২১৯ (শুভাগত হোম চৌধুরী), ৮/২৩২ (লিটন কুমার দাস), ৯/২৪৬ (মোহাম্মদ শহীদ), ১০/ ২৫৬ (জুবায়ের হোসেন লিখন)।

বোলিং : ইশান্ত শর্মা ৭-০-২৪-০, রবিচন্দ্রন অশ্বিন ২৫-৬-৮৭-৫, উমেশ যাবদ ৭-০-৪৫-০, বরুন অ্যারুন ৯-০-২৭-১, হরভজন সিং ১৭.৫-২-৬৪-৩।

বাংলাদেশ ২য় ইনিংস             রান   বল   ৪    ৬

তামিম ইকবাল অপরাজিত        ১৬   ৪১   ৩    ০

ইমরুল কায়েস অপরাজিত        ৭     ৪৯   ১    ০

অতিরিক্ত                            ০

মোট রান (বিনা উইকেট; ১৫ ওভার)    ২৩

বোলিং : উমেশ যাবদ ২-১-৪-০ রবিচন্দ্রন অশ্বিন ৬-২-৮-০ হরভজন সিং ৫-২-১১-০, মুরালি বিজয় ১-১-০-০, শিখর ধাওয়ান ১-১-০-০।

টস জয়: ভারত

ফল: ম্যাচ ড্র।

ম্যাচ সেরা খেলোয়াড় শিখর ধাওয়ান (ভারত)।

 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৫ জুন, ২০২১ ইং
ফজর৩:৪৩
যোহর১১:৫৯
আসর৪:৩৯
মাগরিব৬:৪৯
এশা৮:১৪
সূর্যোদয় - ৫:১১সূর্যাস্ত - ০৬:৪৪
পড়ুন