রানার্সআপ দেখছে শেখ রাসেল
শেখ রাসেল ৪ : সকার ক্লাব ৩
স্পোর্টস রিপোর্টার০৮ আগষ্ট, ২০১৫ ইং
রানার্সআপ দেখছে শেখ রাসেল
শিরোপার আশা ছেড়ে দেয়া শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র এখন পেশাদার লিগে রানার্সআপ হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে। আর এক ম্যাচ জিতলেই দলটি লিগ রানার্সআপ হবে। শেখ রাসেলের আগামী ম্যাচ চট্টগ্রাম আবাহনীর বিরুদ্ধে। ওই ম্যাচে তিন পয়েন্ট পেলেই রানার্সআপ হবে তারা। তারপরও শেখ রাসেলের হাতে আরেকটি ম্যাচ রয়ে যাবে। রহমতগঞ্জের বিরুদ্ধে খেলতে হবে। শেখ রাসেল ১৮ খেলায় ৩৮ পয়েন্ট পেয়েছে। চট্টগ্রাম আবাহনীর বিরুদ্ধে জিতলে ৪১ পয়েন্ট হবে, যা কিনা দুই ম্যাচ জিতেও জোগাড় করতে পারবে না ১৮ খেলায় ৩৪ পয়েন্ট করে পাওয়া মোহামেডান এবং আবাহনী।

শেখ রাসেল ২০১২ ফুটবল মৌসুমে ‘ট্রেবল’ জয় করেছিল। সেই দলটি গত ফুটবল মৌসুমে ভালো করতে পারেনি। এবার চ্যাম্পিয়ন হওয়ার আশা নিয়ে দল গঠন করা হলেও তারা ছিটকে গিয়েছে লড়াই থেকে। এখন রানার্সআপ হলেও তুলনায় গত মৌসুমের চেয়েও ভালো হবে এটাই সান্ত্বনা।

লিগ রানার্সআপের লড়াইয়ে কাল সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে শেখ রাসেলের সামনে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল ফেনীর সকার ক্লাব। ম্যাচে ছিলেন না জাহিদ, হেমন্ত, বসনিয়ার ডিফেন্ডার বোজন পেত্রিক। তারপরও দলের কর্মকর্তারা মনে করেছিলেন সহজেই ম্যাচটা জিতবে। কিন্তু তা হয়নি। জিততে গিয়ে মিঠুন, ওয়ালী ফয়সাল, সোহেল রানা, জামাল হোসেন, তপু বর্মনদের ঘাম ছুটে গিয়েছিল। উত্কণ্ঠায় থাকা কোচ মারুফুল হক এবং তার দলের কর্মকর্তাদের মুখে হাসি ফুটিয়েছেন খেলোয়াড়রা।

শেখ রাসেল ৪-৩ গোলে হারিয়েছে সকার ক্লাবকে। ১০ মিনিটে সোহেলের গোলে এগিয়ে ছিল সকার ক্লাব ১-০। ২৪ মিনিটে অফসাইডে থাকা শেখ রাসেলের অধিনায়ক মিঠুনের গোলে সমতা আসে ১-১। এরপরই মিঠুনের ভলি ক্রসপিসে লেগে ফিরে আসে। তাদের ছাড়া ম্যাচ জিততে ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে খেলাটা যেন দারুণ জমে উঠে। গোল আর পাল্টা গোল হয়। ৫১ মিনিটে পলএমিলি এবং ৫২ মিনিটে এমিলির গোলে এগিয়ে শেখ রাসেল ৩-১। ৫৮ মিনিটে সকার ক্লাবের মামুন এবং ৬১ মিনিটে মামুনের গোলে ম্যাচ ৩-৩ হয়। খেলার শেষ মুহূর্তে শেখ রাসেলের পলএমিলি গোল করে দলকে উদ্ধার করেন ৪-৩। সকার ক্লাবের খেলোয়াড় পরিবর্তনই তাদের ডুবিয়েছে কাল।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৮ আগষ্ট, ২০২১ ইং
ফজর৪:০৯
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪১
মাগরিব৬:৪০
এশা৭:৫৯
সূর্যোদয় - ৫:৩১সূর্যাস্ত - ০৬:৩৫
পড়ুন