দর্শকবিহীন ইউরো-২০১৬ !
স্পোর্টস ডেস্ক০৩ মার্চ, ২০১৬ ইং
বলা হয় মাঠে খেলেন খেলোয়াড়রা আর গ্যালারিতে দ্বাদশ খেলোয়াড় হিসেবে গলা ফাটান দর্শকরা। প্রিয় দলের জয়ে স্টেডিয়ামে উপস্থিত ভক্তদের আবেগময় উল্লাস আর পরাজয়ে হিমশীতল করা নীরবতায় চোখের কোণে ঝলমল করা অশ্রুবিন্দুই তো খেলার আসল সৌন্দর্য। কিন্তু এই মহিমাকে বাদ দিয়েই মাঠে গড়াতে পারে আসন্ন ইউরো-২০১৬ এর ম্যাচ!

আগামী ১০ জুন থেকে ফ্রান্সে শুরু হওয়া ইউরোপিয়ান ফুটবলের সবচেয়ে বড় আসরটির নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে কয়েকটি পদক্ষেপ নিতে পারে উয়েফা। যার মধ্যে থাকছে দর্শকবিহীন ফুটবল ম্যাচ আয়োজনের সিদ্ধান্তও! আসরের পরিচালক মার্টিন ক্যালেন বলেন, ‘যদি নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা থাকে তবে দর্শকদের ছাড়াও ম্যাচ খেলার প্রয়োজন হতে পারে।’ গত বছরের নভেম্বর মাসে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয় ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিস। ইংলিশ গণমাধ্যম বিবিসির খবর অনুযায়ী, আত্মঘাতী বোমা হামলা ও গোলাগুলির কারণে ১৩০ জন নিহত এবং শত শত লোক আহত হয়। সন্ত্রাসীদের হামলার পরিকল্পনার মধ্যে ছিল প্যারিসের বিখ্যাত স্টেডিয়াম স্টাডে ডি ফ্রান্সে চলমান ফ্রান্স-জার্মানির মধ্যকার আয়োজিত প্রীতি ম্যাচটিও। অবশ্য স্টেডিয়ামের বাইরে হামলার কারণে আশঙ্কা আর উদ্বেগের মধ্যে ভিতরে কোনো হতাহতের ঘটনা ছাড়াই শেষ হয় খেলাটি।

স্টাডে ডি ফ্রান্স স্টেডিয়ামেই আর মাত্র ৯৯ দিন পর ফ্রান্স এবং রোমানিয়ার মধ্যকার খেলা দিয়ে পর্দা উঠবে ইউরোর। ফাইনাল ছাড়াও আরো কয়েকটি ম্যাচ খেলা হবে ফ্রান্সের জাতীয় স্টেডিয়ামটিতে।

আপাতত কোনো হুমকির খবর না থাকলেও নিরাপত্তাজনিত কারণে ম্যাচ স্থগিত করা কিংবা অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনাও আছে আয়োজকদের। ক্যালেন বলেন, ‘ম্যাচ স্থগিত করা কিংবা পরে খেলানোর সম্ভাবনাও আছে। তবে এখন পর্যন্ত কোনো মারাত্মক হুমকির ইঙ্গিত নেই।’ আশঙ্কার কথা জানালেও শেষ পর্যন্ত এমন উদ্যোগ নিতে হবে না বলেই আশা তার। তিনি বলেন, ‘আমরা খেলোয়াড় ভক্তসহ সকল অংশগ্রহণকারীর নিরাপত্তাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেই। যে কারণে আমরা এসব বিষয় নিয়ে ভাবছি। তবে আমরা নিশ্চিত নিরাপত্তার জন্য পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেয়া হলেও একটি উত্সবমুখর ইউরোই পেতে যাচ্ছি আমরা।’-বিবিসি/ডেইলি মেইল

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৩ মার্চ, ২০২১ ইং
ফজর৫:০৪
যোহর১২:১১
আসর৪:২৪
মাগরিব৬:০৫
এশা৭:১৮
সূর্যোদয় - ৬:১৯সূর্যাস্ত - ০৬:০০
পড়ুন