অতীত ফুটবলে বহিষ্কারের যত ঘটনা
স্পোর্টস রিপোর্টার০৩ মার্চ, ২০১৬ ইং
ফুটবলারদের বহিষ্কার কিংবা শাস্তি নতুন কিছু না। বাংলাদেশের ফুটবলের ইতিহাসে অনেক বড় তারকা ফুটবলারকেও বহিষ্কার হতে হয়েছিল। ৭৯ সালে লিগে ভিক্টোরিয়ার বিরুদ্ধে মোহামেডানের স্ট্রাইকার এনায়েত খেলা চলাকালীন মাঠের মধ্যেই রেফারি দলিল খানকে মেরে মারাত্মকভাবে আহত করেছিলেন। তাকে তখন ৫ বছরের জন্য বহিষ্কার করা হলেও সেটি পরে ১ বছর করা হয়।

আবাহনীর অধিনায়ক শেখ মোঃ আসলাম এবং মোহামেডানের অধিনায়ক রনজিতকে এক বছরের জন্য ফুটবল লিগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছিল ৮৭ সালে। যদিও ওই বছর ফুটবল লিগও মাঠে গড়ায়নি। তবে এটা ঠিক সেই বছর আসলাম রনজিতের বহিষ্কার নিয়ে দেশের ক্রীড়াঙ্গনে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছিল। রাজপথে ফুটবলারদের মিছিল-মিটিং সমাজের সবক্ষেত্রে আলোড়ন তুলেছিল। আসলাম রনজিতের অপরাধ, লিগের শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচ গোলশূন্য ভাবে শেষ হওয়ায় নিজেরা যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করেন। অথচ তারা লিগ কমিটির সাথে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। 

ব্রাদার্সের ফুটবলার রেজাউল করিম লিটনকে ৫ বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছিল। এভাবে ফুটবলের বিভিন্ন সময়ে অনেক খেলোয়াড়ই বহিষ্কার হয়েছিলেন।

এবার এক সাথে চার ফুটবলারকে বহিষ্কার করেছে বাফুফে। অধিনায়ক মামুনুল ইসলাম ও জাহিদ হোসেন ১ বছরের জন্য এবং ইয়াসিন খান ও সোহেল রানাকে ৬ মাসের জন্য বহিষ্কার করা হলো। ফুটবল ছাড়াও ক্রিকেটে সর্বশেষ বহিষ্কার হয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। হকিতে বহিষ্কার ছিলেন মাহবুবুল এহসান রানা, জিমি, বাপ্পী, প্রিন্স, চন্দন, জাহিদ, তুহিন। ২০০৬ মেলবোর্ন কমনওয়েলথ গেমসে নারী কেলেংকারীর কারণে শ্যুটার তৌফিকুর রহমান আলোকে বহিষ্কার করা হয়।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৩ মার্চ, ২০২১ ইং
ফজর৫:০৪
যোহর১২:১১
আসর৪:২৪
মাগরিব৬:০৫
এশা৭:১৮
সূর্যোদয় - ৬:১৯সূর্যাস্ত - ০৬:০০
পড়ুন