আবাহনী-প্রাইম দোলেশ্বর
তামিমদের আচরণে স্থগিত ম্যাচ!
স্পোর্টস রিপোর্টার১৩ জুন, ২০১৬ ইং
তামিমদের আচরণে স্থগিত ম্যাচ!
ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের চলতি আসরের শুরু থেকেই আম্পায়ারিং নিয়ে বির্তক চলছিল। গতকালও আলোচনায় এলো আম্পায়ারিং নিয়ে বিতর্ক। তবে এবার আবাহনীর পক্ষে সিদ্ধান্ত নিয়ে বিতর্ক নয়। এবার আবাহনীর খেলোয়াড়দের আচরণের কারণে আম্পায়ারা মাঠ ছেড়েই বেরিয়ে গেলেন এবং গতকালকের মতো বন্ধ রইলো আবাহনী ও প্রাইম দোলেশ্বর ম্যাচ।

গতকাল রাত পর্যন্ত এই ম্যাচের ব্যাপারে ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিশ (সিসিডিএম) কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি। এ ব্যাপারে জানতে যোগাযোগ করা হলে সিসিডিএমের সমন্বয়ক আমিন খান বলেন, তারা ম্যাচ রেফারির রিপোর্ট পাননি। তবে শুনেছেন যে, আম্পায়াররা অসুস্থ হয়ে পড়ায় খেলা বন্ধ করা হয়েছে। আজ খেলা হবে কি না, নিশ্চিত নয়।

ঘটনার সময় ব্যাট করছিল প্রাইম দোলেশ্বর; আবাহনীর ১৯১ রানের জবাবে ১৫.৪ ওভারে দোলেশ্বরের রান তখন ২ উইকেটে ৫২ রান। সাকলাইন সজিবের বলে রকিবুল হাসানের বিপক্ষে স্টাম্পিংয়ের আবেদন করেন আবাহনীর ফিল্ডাররা। লেগ আম্পায়ার তানভির আহমেদ ‘নট আউট’ জানানোর পর তামিম ইকবাল আম্পায়ারের উপর চড়াও হন। পাঁচ মিনিট এভাবে চললে বিষয়টি সাময়িক মীমাংসা হয়।

১৭তম ওভারে অমিত কুমারের বলে রকিবুল লংঅনে ছক্কা হাঁকালে তামিম ইকবাল আরেক দফা আম্পায়াদের উপর চড়াও হন। একই সাথে মাঠের বাইরে থেকে আবাহনীর দর্শকরা আম্পায়ারদের নাম ধরে অশ্রাব্য ভাষায় গালাগালি করতে থাকেন।

ফিল্ড আম্পায়াররা ১৭তম ওভারটি কোনো মতে শেষে করে ম্যাচ রেফারি মন্টু দত্তকে মাঠে ডেকে নিয়ে বিষয়টি জানান। ম্যাচ রেফারি সব শুনেও খেলা চালিয়ে যেতে আম্পায়ারদের অনুরোধ করেন। কিন্তু আম্পায়ররা আর খেলা চালাতে পারবেন না জানিয়ে মাঠ ছেড়ে চলে আসেন।

ম্যাচ রেফারি মন্টু দত্ত আম্পায়ারদের অনেক বুঝানোর পরও তারা আর মাঠে নামেননি। ম্যাচ রেফারি বলেন, ‘আমি খেলা মাঠে গড়ানোর জন্য অনেক চেষ্টা করেছি। আম্পায়ার তানভির আহমেদ প্রথমে অসুস্থ হয়ে পড়লে, অন্য আম্পায়ার গাজী সোহেলের সাথে রিজার্ভ আম্পায়ার সাইফুলকে দিয়ে খেলা চালিয়ে নিতে চেয়েছিলাম। কিন্তু কিছুক্ষণ পর দেখলাম সোহেলও অসুস্থ হয়ে পড়ে। যার কারণে খেলা মাঠে গড়ানো সম্ভব হয়নি। বিষয়টি আমি এখন ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিসকে (সিসিডিএম) জানাবো। ওনারা সিদ্ধান্ত নিবেন ম্যাচটি আগামীকাল রিজার্ভ ডে’তে হবে কিনা।’

এর আগে বিকেএসপির এই মাঠে আগে ব্যাট করে ৪২.৪ ওভারে ১৯১ রানে অলআউট হয়ে যায় আবাহনী। জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে ১৭ ওভারে দুই উইকেট হারিয়ে ৫৯ রান সংগ্রহ করে প্রাইম দোলেশ্বর। 

আগে ব্যাটিংয়ে নেমেই দোলেশ্বরের পেস আক্রমণে কুপোকাত আবাহনী। মাত্র ১৯ রানে দুই ওপেনারকে হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে পড়ে খালেদ মাহমুদ সুজনের শিষ্যরা। ৫১ বলে ছয়টি চারের মারে ৪৮ রান করেন লিটন। ১১৩ বলে পাঁচ চারের মারে ৭১ রান করেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

নাসিরের বলে এলবিডব্লিউ হওয়ার আগে ১৫ বলে ৯ রান করেন আবাহনীর একমাত্র বিদেশি ক্রিকেটার যশপাল সিং। সানজামুলকে কাট করতে গিয়ে কিপারের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। সাথে ব্যাটিংয়ে নামা সাকিবের কলে সাড়া দিতে গিয়ে রান আউট হন আবুল হাসান রাজু। ৩৭তম ওভারে সানজামুলের বলে লংঅনের উপর দিয়ে ব্যাক টু ব্যাক চার মারেন সাকিব, ওভারের পরের বলে উইকেটের উপর সানজামুলের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে ১৮ রান করেন দেশ সেরা এই ক্রিকেটার। শেষ দিকে তাসকিন আহমেদ এবং সাকলাইন সজিব উড়িয়ে মারতে গিয়ে নাসির হোসেন ও ইমতিয়াজের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন। দোলেশ্বরের হয়ে আল-আমিন ও সানজামুল তিনটি করে উইকেটে নেন। নাসির হোসেন নেন দুই উইকেট।

জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে তাসকিনের বলে ডিপ মিডউইকেটে আবুল হাসান রাজুর হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন রনি তালুকদার (৩)। দোলেশ্বরের রান মেশিন ইমতিয়াজ হোসেন তান্না, অমিত কুমার নয়নের বলে এলডিডব্লিউ হওয়ার আগে ১৯ রান করেন। ৩৮ রানে দুই ওপেনারের উইকেট হারিয়ে শ্লথগতিতে এগুতে থাকে দোলেশ্বর।

 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৩ জুন, ২০২১ ইং
ফজর৩:৪৩
যোহর১১:৫৯
আসর৪:৩৯
মাগরিব৬:৪৯
এশা৮:১৪
সূর্যোদয় - ৫:১১সূর্যাস্ত - ০৬:৪৪
পড়ুন