ময়মনসিংহেও মোহামেডানের ড্র
ময়মনসিংহেও মোহামেডানের ড্র
দুই হাজার দশ সালে প্রিমিয়ার ফুটবল লিগে কোচ শফিকুল ইসলাম মানিকের হাত ধরে মোহামেডান টানা তিন ম্যাচ হেরে হ্যাটট্রিক করেছিল। তবে এবার টানা তিন ম্যাচ না হারলেও প্রিমিয়ার ফুটবল লিগে মোহামেডান এখনও জয়ের দেখাই পায়নি। ময়মনসিংহের রফিক উদ্দিন স্টেডিয়ামে কাল বিকালের খেলায় আবারও মোহামেডান ১-১ গোলে ড্র করেছে অফিস দল বিজেএমসির বিপক্ষে।

চার খেলায় জয় শূন্য মোহামেডান ৩ ড্রয়ে ৩ পয়েন্ট। জয় না পাওয়া বিজেএমসিরও একই অবস্থা, ৩ পয়েন্ট।

প্রথমার্ধের শেষ মুহূর্তে, একেবারে ইনজুরি টাইমে বিজেএমসির বিপক্ষে তৌহিদুল আলম সবুজের গোলে মোহামেডান এগিয়ে ছিল ১-০।  ম্যাচটা জিততে পারল না বিজেএমসির কুশলী ফুটবলার আব্দুল্লাহ পারভেজের কারণে। তার দর্শনীয় বাঁক খাওয়া কর্নার, মোহামেডানের ছোট বক্সে লাফিয়ে হেড করে গোল করে সমতা আনেন মুকুল ১-১।

ময়মনসিংহের মাঠে মোহামেডান খেলতে নামবে বলে অনেক পুরানো সমর্থকও এসেছিলেন খেলা দেখতে। শত বছরের পুরানো সংগঠন। অনেকেই মোহামেডানে খেলেছেন আবার অনেকে এই সাদা-কালো দলটির কট্টর সমর্থক। ঢাকায় থাকা হয় না বলে খেলা দেখাও হয় না। একটা সময় এই সব সমর্থক মোহামেডানের বড় ম্যাচের দিনে ময়মনসিংহ থেকে ঢাকায় চলে এসেছেন। সময়ের সাথে সাথে দেশের ফুটবলের সেই স্রোতটা ধরে রাখা হয়নি। ময়মনসিংহে ঘরের মাঠে প্রিয় দলের খেলা দেখে অনেক দর্শক হতাশ হয়েছেন। প্রথমার্ধে গোল করে যখন এগিয়ে গেছে মোহামেডান সেটা রাখতে পারেনি। 

সেই রক্ষণভাগেই সমস্যা মোহামেডানের। গোলকিপার নেহাল দায়িত্ব পালন করলেও রক্ষণ ভাগ এবং গোলকিপিং দুর্বলতায় মোহামেডান যেন বার বার ভুগছে। ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে অনেক প্রশ্নই কৌশলে এড়িয়ে গেলেন মোহামেডানের কোচ কাজী জসিম উদ্দিন জোসী। তিনি বলেন, ‘আমাদের খেলোয়াড়রা অনেক ভুল করেছেন। তাদের ভুল কমাতে হবে। শুরু থেকেই গোল না খাওয়ার চেষ্টা ছিল আমাদের। কিন্তু এ যাত্রাতেও খেলোয়াড়রা মাঠে সিদ্ধান্ত নিতে ভুল করেছে। তারা সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে পারেনি।’ চার ম্যাচে একটিও জিততে পারেননি, এ দুরবস্থার জন্য দায়ী কে? এমন প্রশ্নের জবাব এড়িয়ে যান মোহামেডান কোচ। তিনি বলেন, ‘সংবাদ সম্মেলনে শুধু মাঠের বিষয় নিয়ে কথা বলবো। এ প্রশ্নের জবাব দেওয়ার জায়গা এটি নয়। মাঠের খেলা নিয়েই এখানে কথা বলতে চাই।’ মোহামেডানের কোচ কাঙ্ক্ষিত ফুটবল উপহার দিতে না পারায় ময়মনসিংহের দর্শকদের কাছেও ক্ষমা প্রার্থনা করেন।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দিতে মোটেও যুত্সই প্রস্তুতি নিয়ে আসেননি বিজেএমসি’র কোচ নম্র মারমা। দু’এক কথা বলার পর তার মুখ থেকে কথা কেড়ে নিয়ে প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন ম্যানেজার আরিফুল হক চৌধুরী নিয়ন। স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে নম্র মারমা বলেন,‘ময়মনসিংহে আমাদের প্রথম ম্যাচ এটি। পরিশ্রম করে আমরা খেলেছি। প্রথমার্ধে পিছিয়ে থেকেও দ্বিতীয়ার্ধেই সমতা ফিরিয়ে এনেছি।’ কোচ বলেন, জয়ের আশাতেই মাঠে নেমেছিলাম। কিন্তু আমাদের ভাগ্য খারাপ। এ কারণেই জিততে পারিনি।’

ডাগআউটে কোচদের দাঁড়ানোর কথা থাকলেও নম্র মারমাকে দেখা যায়নি কাল। এ নিয়ে প্রশ্ন উঠলে তার বদলে জবাব দেন পাশেই বসা ম্যানেজার আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, কোচ উচ্চ রক্তচাপে ভুগছেন। তবে মাঠে যা কিছু হচ্ছে সব তার পরামর্শেই।’ এ যাত্রায় ওই কোচ বলেন, চারটি ম্যাচেই খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্সে আমরা সন্তুষ্ট।’ মোহামেডানকে কাগজে-কলমেই বড় দল বলে মনে করে বিজেএমসি।

আজকের খেলা ঃ আবাহনী ও মুক্তিযোদ্ধা, ৪টা, ময়মনসিংহ।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৮ আগষ্ট, ২০১৯ ইং
ফজর৪:০৯
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪১
মাগরিব৬:৪০
এশা৭:৫৯
সূর্যোদয় - ৫:৩১সূর্যাস্ত - ০৬:৩৫
পড়ুন