অতৃপ্তি নেই ভাইকিংসের
০৮ ডিসেম্বর, ২০১৬ ইং
g  স্পোর্টস রিপোর্টার  

অন্তত আগের আসরের তুলনায় ভাল করেছে। সে কারণেই শিরোপার আশা জাগিয়ে ছিটকে পড়লেও  চিটাগং ভাইকিংসের অতৃপ্তি নেই। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) চট্টগ্রাম বিভাগের ফ্র্যাঞ্চাইজির মালিকানায় আসে দেশের পোশাক প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান ডিবিএল গ্রুপ। প্রথম আসরেই তিক্ত অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হয়েছিলেন তারা। ছয় দলের টুর্নামেন্টে তাদের মালিকানাধীন চিটাগং ভাইকিংস টুর্নামেন্ট শেষ করেছিল তলানিতে থেকে। সে তুলনায় এবার চতুর্থ আসরে স্বস্তিকর পারফরম্যান্স দেখিয়েছে তামিম ইকবালের দল। প্লে-অফের এলিমিনেটর ম্যাচে রাজশাহী কিংসের কাছে হেরে বিদায় নিয়েছে ভাইকিংস। অনেক কাছে আসলেও ট্রফি জয়ের মঞ্চে যেতে পারেনি তামিম বাহিনী।

১২ ম্যাচের ছয়টি জিতেছিল ভাইকিংস। শিরোপার আশা জাগিয়ে ছিটকে পড়লেও দলের পারফরম্যান্স নিয়ে আক্ষেপ, অতৃপ্তি নেই ডিবিএল গ্রুপের। গতকাল সকালে ডিবিএল গ্রুপ ও ভাইকিংসের কর্ণধার আব্দুল ওয়াহেদ জানিয়েছেন, রাত পোহাতেই বিপিএলের রেশ কাটিয়ে ব্যবসায় মনোযোগী হয়ে গেছেন।

বিপিএল নিয়ে কথা বলতে অপারগতা জানান আব্দুল ওয়াহেদ। তারপরও যেটুকু বলেছেন, তাতে দল নিয়ে তাদের ভাবনা আপাতত শেষ। তিনি বলেন, ‘আমাদের টুর্নামেন্ট শেষ। আমাদের কোনো আক্ষেপ, দুঃখ নাই। আমরা আনন্দ করতে করতে বের হয়ে গেছি স্টেডিয়াম থেকে। আমাদের চেয়ে বেশি আনন্দ মনে হয় কোনো দল করেনি। আমি ভাগ্যে যা আছে তা বিশ্বাস করি। আমরা মানুষকে আনন্দ দেয়ার চেষ্টা করেছি, কতটা পেরেছি জানি না।’

বিপিএলের দল মালিকদের মধ্যে ডিবিএল গ্রুপের একটা সুনাম আছে। সেটা নিজ দলের খেলোয়াড়, কর্মকর্তা ও এমনকি অন্য দলের খেলোয়াড়রা তাদের প্রশংসায় পঞ্চমুখ। টুর্নামেন্ট শেষ হওয়ার আগেই এবারও সবার পারিশ্রমিক দিয়েছে ভাইকিংস। তবে দলের কোচ সালাউদ্দিন অবশ্য স্থানীয় ব্যাটসম্যানদের পারফরম্যান্সে তৃপ্ত হতে পারেননি। তার মতে, অধিনায়ক তামিম ছাড়া বাকিদের পারফরম্যান্স একটু ভালো হলে দলের রেজাল্ট আরো ভালো হতো।

ভাইকিংসের বিপিএল মিশন নিয়ে বলতে গিয়ে সালাউদ্দিন বলেছেন, ‘আমার মনে হয় টুর্নামেন্টের শুরুটা আমরা খারাপভাবে করছিলাম। যদিও ফিরে আসছি খুব ভালোভাবে। তারপরও আসলে আমি তামিম ইকবাল ছাড়া স্থানীয় খেলোয়াড়দের কাছ থেকে খুব একটা সাপোর্ট পাইনি। পুরো টুর্নামেন্টেই স্থানীয় খেলোয়াড়দের দাপট ছিল। সে তুলনায় আমাদের দলে স্থানীয় খেলোয়াড়দের সেই দাপটটা পাইনি। তার কারণে তামিমের উপর অনেক চাপ পড়ে গেছে। স্থানীয় ক্রিকেটারদের কাছ থেকে আরো একটু সাপোর্ট পেতাম তাহলে রেজাল্ট আরো ভালো হতো।’

শীর্ষ দুইয়ে থেকে প্লে-অফ খেলতে পারেনি ভাইকিংস লিগ পর্বে শেষ দুটি ম্যাচ হেরে যাওয়ায়। বোলিংয়ে শুভাশীষ রায়ের প্রশংসা করেছেন এই কোচ। তবে তাসকিন আহমেদ আশানুরূপ পারফরম্যান্স করতে পারেননি বলে মনে করেন সালাউদ্দিন। আর সবার মতো তিনিও দলের মালিকদের প্রশংসায় ভাসিয়েছেন। তাছাড়া দলের বিদেশি ক্রিকেটার ক্রিস গেইল, শোয়েব মালিকরাও নাকি বলে গেছেন, এমন পরিবেশ ফ্র্যাঞ্চাইজ টুর্নামেন্টে কমই পাওয়া যায়।

সালাউদ্দিন বলেন, ‘ব্যক্তিগতভাবে উনারা খুবই ভালো মানুষ। গতবারের মতো এবারও তারা খেলা শেষ হওয়ার আগেই পারিশ্রমিক দিয়ে দিয়েছে। মালিক হিসেবে তারা খুবই ভালো। আমরা টুর্নামেন্টের শুরুতে এক ম্যাচ জয়ের পর চারটি হেরেছি। তারপরও দলের যে পরিবেশ ছিল তাতে কোনো চাপ ছিল না। তার কারণেই আমরা ঘুরে দাঁড়াতে পেরেছি। ফলে আমাদের পরিবেশটা কখনোই নষ্ট হয়নি। বিদেশি ক্রিকেটার যারা ছিল তারাও সবাই বলে গেছে, ‘এমন পরিবেশ কম পেয়েছে। এত ভালো একটা পরিবেশ কম পাওয়া যায় ফ্র্যাঞ্চাইজ টুর্নামেন্টের ক্ষেত্রে।’

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৮ নভেম্বর, ২০১৯ ইং
ফজর৫:০৭
যোহর১১:৫১
আসর৩:৩৬
মাগরিব৫:১৫
এশা৬:৩৩
সূর্যোদয় - ৬:২৭সূর্যাস্ত - ০৫:১০
পড়ুন