মোহামেডানের জয়, আবাহনীর হার
স্পোর্টস রিপোর্টার১১ মার্চ, ২০১৮ ইং
মোহামেডানের জয়, আবাহনীর হার

চলমান ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে রীতিমত আকাশেই উড়ছিল আবাহনী। তবে এবার তাদের মাটিতে নামালো প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাব। হাড্ডাহাড্ডি লড়াই শেষে মাত্র তিন রানে হেরে যায় আবাহনী। অন্যদিকে মৌসুমের শুরু থেকে ছন্নছাড়া মোহামেডান নিজেদের চতুর্থ জয়ের দেখা পেয়েছে। ৩৮ রানে তারা হারিয়েছে শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাবকে। চলতি লিগে নবম ম্যাচ খেলতে নেমে এটা আবাহনীর দ্বিতীয় পরাজয়। সাতটি জয় নিয়ে এখনো তারা আছে পয়েন্ট তালিকায় সবার ওপরে। তাদের পয়েন্ট ১৪। অন্যদিকে তাদের চেয়ে দু’টি ম্যাচ কম জিতে আর তিনটি পয়েন্ট কম নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আসে প্রাইম দোলেশ্বর। গতকাল ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে মোহামেডানকে হারাতে পারলেই পয়েন্ট তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসতে পারতো শাইনপুকুর। তবে সেই সুযোগ তারা হাতছাড়া করেছে।

টসে জিতে ব্যাট করতে নামা মোহামেডান নির্ধারিত ৫০ ওভারে ছয় উইকেট হারিয়ে ৩০৬ রান করে। জবাবে ৪৮.১ ওভারে ২৬৮ রানেই অল আউট হয়ে যায় শাইনপুকুর। মোহামেডান জিতে ৩৮ রানে।

মোহামেডানের ইনিংসে কোনো সেঞ্চুরি না থাকলেও হাফ-সেঞ্চুরি করেছেন চারজন ব্যাটসম্যান। এর মধ্যে রনি তালুকদার ৭৭, অধিনায়ক শামসুর রহমান শুভ ৬০, যুবদল থেকে আসা সাঈদ সরকার ৫৮ ও রকিবুল হাসান ৫৫ রান করেন। এর মধ্যে সাঈদের ইনিংসের কথা আলাদাভাবে বলতে হয়, কারণ তার ইনিংসটা ছিল মাত্র ৩০ বলের। ঝড়ো এই ইনিংসে ছিল দু’টি চার ও পাঁচটি ছক্কা। শাইনপুকুরের হয়ে মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন নেন তিনটি উইকেট।

বল হাতে মোহামেডানের হয়ে আলো ছড়ান মোহাম্মদ আজিম ও তাইজুল ইসলাম। এদের দু’জন যথাক্রমে চারটি ও তিনটি করে উইকেট পান। বোলিংয়ে তিন উইকেটের পর ব্যাট হাতেও দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৬৮ রান করেন সাইফুদ্দিন। এছাড়া অধিনায়ক শুভাগত হোম করেন ৫২ রান। অপর খেলায় মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ব্যাটিং-এ নেমে আবাহনীর দুই উদ্বোধনী বোলার আরিফুল ইসলাম সবুজ ও মাশরাফি বিন মর্তুজার তোপে পড়ে প্রাইম দোলেশ্বর। ৩৯ রানের মধ্যেই ৩ উইকেট হারিয়ে বসে তারা। দুই ওপেনার ইমতিয়াজ হোসেন ১৬ ও আবু সায়েম ১০ রান করে সবুজের শিকার হন। চার নম্বরে নামা আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান মার্শাল আইয়ুবকে ব্যক্তিগত ৫ রানে বিদায় দেন মাশরাফি।

এরপর শক্ত হাতে দলের হাল ধরেন ফজলে মাহমুদ ও ফরহাদ হোসেন। দু’জনের ব্যাটিং দৃঢ়তায় ১৩২ রান পায় প্রাইম দোলেশ্বর। এতে বড় স্কোর গড়ার সুুযোগ পেয়ে যায় দলটি। কিন্তু ফজলে ৬৮ ও ফরহাদ ৬৩ রানে ফিরে গেলে পরবর্তী ব্যাটসম্যানরা বড় স্কোর করতে না পারায় ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ২৩২ রানে থামে প্রাইম দোলেশ্বর। শেষদিকে একমাত্র ফরহাদ রেজাই ২৬ বলের ২৮ রানের ইনিংস খেলে দু’অংকে কোটা পেরোতে পারেন। আবাহনীর পক্ষে ভারতের মনন শর্মা ৪টি ও সবুজ-মাশরাফি ২টি করে উইকেট নেন।

জবাবে ২৬ রানেই ২ উইকেট হারিয়ে বসে আবাহনী। তৃতীয় উইকেটে ৫২ রানের জুটি গড়ে দলকে লড়াই রাখার চেষ্টা করেন এনামুল হক ও অধিনায়ক নাসির হোসেন। ৫৭ বলে ৩৪ রান করে এনামুল ফিরে গেলেও, হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নেন নাসির। দলীয় ১৩৩ রানে নাসির ফিরে গেলে চাপে পড়ে যায় আবাহনী। কারণ এরপর স্বীকৃত ব্যাটসম্যান ছিলেন কেবল মোহাম্মদ মিথুন। তাকে লোয়ার-অর্ডার থেকে ভালোভাবে সহায়তা করতে পারেননি কেউই। তারপরও ৪৯ ওভার পর্যন্ত ব্যাট করেছেন তিনি। ঐ ওভারের দ্বিতীয় বলে তার বিদায়, আবাহনীর জয়ের পথকে কঠিন করে তোলে। কারণ শেষ উইকেটে শেষ দশ বলে জয়ের জন্য আবাহনীর দরকার পড়ে ২০ রান।

দশম ব্যাটসম্যান সবুজ একটি করে চার-ছক্কায় আবাহনীকে লড়াইয়ে রেখেছিলেন। কিন্তু শেষ ওভারের পঞ্চম বলে সবুজ আউট হলে আবাহনীর স্বপ্ন ভঙ্গ হয়। এক বল হাতে রেখে ২২৯ রানেই গুটিয়ে যায় আবাহনী। নাসির ৭৯ বলে ৫৩, মিথুন ৬১ বলে ৬০ ও সবুজ ১৫ বলে ২১ রান করেন। প্রাইম দোলেশ্বরের আরাফাত সানি ও ফরহাদ রেজা তিনটি করে উইকেট নেন। অলরাউন্ড পারফরম্যান্স দিয়ে ম্যাচ সেরা হন অধিনায়ক ফরহাদ রেজা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

মোহামেডান-শাইনপুকুর

টস: মোহামেডান

মোহামেডান:  ৫০ ওভারে ৩০৬/৬ (রনি ৭৭, শামসুর ৬০, সাঈদ ৫৮, রকিবুল ৫৫, জনি ৩২; সাইফুদ্দিন ৩/৫৫)

শাইনপুকুর: ৪৮.১ ওভারে ২৬৮ অলআউট (সাইফুদ্দিন ৬৮, শুভাগত ৫২, রায়হান ৩৮, ফারদিন ৩৪; আজিম ৪/৪৫, তাইজুল ৩/৬৪)

ফলাফল: মোহামেডান ৩৮ রানে জয়ী

ম্যাচ সেরা: সাঈদ সরকার (মোহামেডান)

 

আবাহনী-প্রাইম দোলেশ্বর

টস: প্রাইম দোলেশ্বর

প্রাইম দোলেশ্বর: ৫০ ওভারে ২৩২/৯ (ফজলে ৬৮, ফরহাদ ৬৩, রেজা ২৮; মনন ৪/৪৪, মাশরাফি ২/৪৭, সবুজ ২/২৯)

আবাহনী: ৪৯.৫ ওভারে ২২৯ অল আউট (মিঠুন ৬০, নাসির ৫৩, বিজয় ৩৪; আরাফাত ৩/৫১, রেজা ৩/৪২, শরীফুল্লাহ ২/৩৬)

ফলাফল: প্রাইম দোলেশ্বর তিন রানে জয়ী।

ম্যাচ সেরা: ফরহাদ রেজা (প্রাইম দোলেশ্বর)।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১১ মার্চ, ২০১৯ ইং
ফজর৪:৫৬
যোহর১২:০৯
আসর৪:২৭
মাগরিব৬:০৯
এশা৭:২১
সূর্যোদয় - ৬:১১সূর্যাস্ত - ০৬:০৪
পড়ুন