শিক্ষার্থীদের বাসভাড়া
১১ অক্টোবর, ২০১৭ ইং
মু. মিজানুর রহমান মিজান

ইউনিফর্ম কিংবা স্টুডেন্ট ব্যাগওয়ালা কাউকে দেখলে তাকে কোনো কোনো গণপরিবহন তুলতে চায় না। অনেক বাসের দরজাতেই লেখা থাকে ‘হাফ পাস নেই’—এটি যে শিক্ষার্থীদের সাবধান করতেই লেখা হয়েছে তাতে সন্দেহ  নেই। এমনও আছে যারা অল্প কিছু ছাড় দিলেও তাদের সর্বনিম্ন ভাড়া ১০ টাকা অর্থাত্ বাসে উঠলেই ১০ টাকা দিতে হবে। এটি যে শুধু শিক্ষার্থীদের জন্য নয়; সাধারণ যাত্রীদের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। অদ্ভুত হলেও সত্য যে, এসব গাড়িতে ৩০ টাকার অর্ধেক ২০ টাকা, ২৫ টাকার অর্ধেক ১৫ টাকা আর ২০ টাকার অর্ধেকও ১৫ টাকা নেওয়া হয়। এ নিয়ে অনেক সময় শিক্ষার্থী ও কন্ডাক্টরের মধ্যে তর্কের সৃষ্টি হয়ে থাকে। ভাড়া না দিতে পারলে বাসে না ওঠারও হুঁশিয়ারি দিয়ে থাকে তারা, সঙ্গে তাদের কুরুচিপূর্ণ কথাও সহ্য করতে হয় শিক্ষার্থীদের। অনেক সময় এ নিয়ে অপ্রীতিকর ঘটনাও ঘটতে দেখা যায় বাসে। বেশ কিছু গাড়িতে টিকেটের ব্যবস্থা থাকায় সেখানে তো শিক্ষার্থীরা আদৌ সুবিধাটি পাচ্ছে না। সকাল থেকে সন্ধ্যা স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গামী অনেক ছেলেমেয়ে যাওয়া-আসা করে থাকে গণপরিবহনেই। বাসা বা মেস থেকে শিক্ষার্থীপ্রতি ১৫ টাকা করে ধরা হলে আসা-যাওয়ায় তার খরচ হবে মাসে ৯০০ টাকা। এর সঙ্গে মেসভাড়া, খাওয়াসহ যাবতীয় খরচ নিয়ে একটা মোটা অংকের টাকাই গুনতে হয় শিক্ষার্থীর পরিবারকে। মাঝে মাঝে পোশাক-পরিচ্ছদ, স্টেশনারি, জল-খাবারের জন্যও ভালো অঙ্কের একটা টাকা লাগে। নিম্নবিত্ত পরিবারের ছেলেমেয়েরা আর কত কষ্ট করবে? প্রশ্নটি সবার কাছে।

সরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজ, ঢাকা

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১১ অক্টোবর, ২০২১ ইং
ফজর৪:৩৯
যোহর১১:৪৬
আসর৩:৫৮
মাগরিব৫:৪০
এশা৬:৫১
সূর্যোদয় - ৫:৫৪সূর্যাস্ত - ০৫:৩৫
পড়ুন