আর কত ছোট হবে ক্রিকেট
২০ ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং
আর কত ছোট হবে ক্রিকেট

খালিদ ফেরদৌস

 

ক্রিকেটের মতো একটি ঐতিহ্যবাহী বিশেষ করে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার তুমুল জনপ্রিয় খেলার ব্যপ্তি বা পরিসর ছোট হতে হতে এখন ফুটবলের মতো ৯০ মিনিটে বন্দি। কিন্তু একটা খেলার সঙ্গে অন্য একটি খেলার তুলনা চলে না। এক এক খেলার সৌন্দর্য এক এক রকম। সমপ্রতি সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত হলো টি-টেন ক্রিকেট লিগ। যদিও অনেক আগে থেকে ক্রিকেটের সবচেয়ে সংক্ষিপ্ততম সংস্করণ সিক্স-এ-সাইড খেলার প্রচলন ছিল এবং বর্তমানেও আছে। যেখানে প্রতিদলে ৬ জন খেলোয়াড় ৫/৬ ওভার করে খেলার সুযোগ পায়।

সূচনালগ্নে ক্রিকেট ইংল্যান্ড বনাম অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার ৫ দিনের টেস্ট ম্যাচ দিয়ে আন্তর্জাতিকভাবে শুরু হয়েছিল। পরবর্তী সময়ে এক টেস্ট ম্যাচে বৃষ্টির কারণে ওভার কেটে ৬০ করা হয়। সেই থেকে ছোট পরিসরে ৫০ ওভারের আন্তর্জাতিক একদিনের ম্যাচ (ওডিআই) চালু হয়। এরপর ২০০৩ সালে ক্রিকেটের সূতিকাগার ইংল্যান্ড (ইসিবি) ক্রিকেট খেলায় বেশি সময় লাগে, এজন্য বেশি দর্শক হয় না—এই অজুহাতে এবং ক্রিকেট জনপ্রিয় করতে ও মাঠে দর্শক টানতে ২০ ওভারে নামিয়ে আনে। চালু করে কাউন্ট্রি টি-টুয়েন্টি লিগ। ক্রিকেট বিশ্বে নতুন ফরম্যাট দারুণ সাড়া ফেলে। জাঁকজমকপূর্ণভাবে প্রথম আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টি টেস্ট, ওডিআই-এর মতো ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে অনুষ্ঠিত হয়। সফলতায় উদ্বুদ্ধ হয়ে আইসিসি আয়োজন করে টি-টুয়েন্টি ওয়ার্ল্ড কাপ-২০০৭। যে ভারত প্রথমে এই টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করতে চায়নি সেই ভারত মাহেন্দ্র সিং ধোনীর নেতৃত্বে তরুণ দল পাঠিয়ে চ্যামিপয়ন হবার গৌরব অর্জন করে। যা ভারতের ক্রিকেট ইতিহাসের মোড় পরিবর্তন করে দেয়। তারা শুরু করে ক্রীড়া জগতের দ্বিতীয় ব্যয়বহুল টুর্নামেন্ট ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল)। তাদের দেখাদেখি অস্ট্রেলিয়াতে বিগ বাজেটের বিগব্যাস, ওয়েস্ট ইন্ডিজে সিপিএল, পাকিস্তানে পিএসএল, বাংলাদেশে বিপিএলসহ প্রায়  প্রত্যেকটি ক্রিকেট পে­য়িং জাতি টি-টুয়েন্টি লিগ সফলভাবে আয়োজন করছে। বাংলাদেশেও দু-একটি আসর বিতর্কিত হলেও বিপিএল আয়োজনে সফল বিসিবি। তারা ক্রিকেটের প্রসার, নতুন সম্ভাবনাময় আগামীর খেলোয়ার তৈরি, কাড়ি কাড়ি টাকা আয় করছে। সব ঠিকঠাক মতোই চলছিল। কিন্তু যারা ক্রিকেটের আসল ঐতিহ্য ও সৌন্দর্যকে অগ্রাহ্য করে, যারা ক্রিকেটে অশ­ীল চিয়ারস লিডার শো, যৌন সুড়সুড়ির অনুপ্রবেশ ঘটিয়ে ক্রিকেটকে নগ্নভাবে বাজারজাত করছে তাদের ব্রেন চাইল্ড নতুন টি-টেন ক্রিকেট। এককথায় তারা ক্রিকেটকে মার্কেটিং পণ্য বানিয়ে ফেলেছে। বৃহত্ অর্থে এটা কোনোভাবে বিশুদ্ধ ক্রিকেটের জন্য শুভকর হতে পারে না। যারা ক্রিকেটকে ছোট করতে করতে এর আসল বৈশিষ্ট্য বিলুপ্ত করছে তারা বলে, গতিশীল বিশ্বে যুগের চাহিদা পূরণ করতে সংক্ষিপ্ত ভার্সনের ক্রিকেটের কোনো বিকল্প নেই। তাদের উদ্দেশ্যে বলি, ইংল্যান্ডে এশেজসহ বিভিন্ন টেস্টম্যাচ অনুষ্ঠিত হলে দর্শকে পরিপূর্ণ থাকে গ্যালারি। শুধু তাই না, তারা খুব আনন্দ-ফূর্তি নিয়ে টেস্টম্যাচ উপভোগ করে।

তাই ক্রিকেটবোদ্ধারা মনে করেন—ক্রিকেটের আসল রোমান্সকর সৌন্দর্য, যুগের চাহিদা ও সময়ের সদ্ব্যবহার নিশ্চিত করতে টেস্টম্যাচের  জৌলুস বৃদ্ধি করা, একদিনের ম্যাচকে আরো আকর্ষণীয় করা এবং ক্রিকেটকে টি-টুয়েন্টি ফরম্যাট বা সংস্করণ পর্যন্ত সীমাবদ্ধ থাকা উচিত। ক্রিকেটকে ৬/১০ ওভারে নামিয়ে আনলে কাজের কাজ কিছুই হবে না। বরং ক্রিকেট নামক সোনার ডিম দেওয়া হাঁসকে মেরে একবারের বেশি ডিম পাওয়ার আশায় লোভী খামারির মতো হবে ক্রিকেটকে পণ্যে পরিণত করা মহলের অবস্থা। বিষয়টিতে তীক্ষ নজর রাখতে হবে বিসিবিকে। আন্তর্জাতিক ক্রীড়া অঙ্গনে আমাদের সুনাম এই ক্রিকেটকে কেন্দ্র করে। বিশ্ব যতটা বাংলাদেশকে চেনে ততটা বাংলাদেশ ক্রিকেটকে চেনে। অর্থাত্ সারা বিশ্বে বাংলাদেশকে চেনাতে বাংলাদেশ যতদূর, ক্রিকেট ততদূর।

এম.ফিল গবেষক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২০ নভেম্বর, ২০২১ ইং
ফজর৫:১৪
যোহর১১:৫৬
আসর৩:৪০
মাগরিব৫:১৯
এশা৬:৩৭
সূর্যোদয় - ৬:৩৫সূর্যাস্ত - ০৫:১৪
পড়ুন