শিশুদের নিয়ে জেগে ওঠার দিন
০২ ডিসেম্বর, ২০১৫ ইং
শিশুদের নিয়ে জেগে ওঠার দিন
প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের ৩২টি জেলায় শিশুদের অধিকার ও সবার জন্য মানসম্মত শিক্ষার প্রতিশ্রুতি নিয়ে গত শনিবার জাগো ফাউন্ডেশন তার ইয়ুথ উইং ভলান্টিয়ার ফর বাংলাদেশের হাজারো ভলান্টিয়ারের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে উদযাপন করল বিশ্ব শিশু দিবস। গত ৯ বছর ধরে জাগো ফাউন্ডেশন শিশুদের অধিকার নিয়ে কাজ করছে এবং বাংলাদেশে বিশ্ব শিশু দিবসকে জনপ্রিয় করা ও শিশু অধিকার চর্চাকে সবার সামনে নিয়ে আসার জন্য ২০০৯ সাল থেকে ৭মবারের মতো জাগো ফাউন্ডেশনের এই ইয়ুথ উইংটি বিশ্ব শিশু দিবস অর্থাত্ ইউসিডি পালন করেছে।

জাতিসংঘ অনুমোদিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্র (এসডিজি)’র চতুর্থ লক্ষ্য হলো—সবার জন্য মানসম্মত শিক্ষা। এই থিমকে সামনে রেখে সবার মাঝে সচেতনতা তৈরি করতে এ বছর রাজধানীতে অনুষ্ঠানটি বনানী সোসাইটি মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। যেখানে পথশিশুদেরকে নিয়ে বিভিন্ন বিনোদন দেওয়া হয়েছে এবং একইসাথে রাজধানীর বিভিন্ন সিগন্যাল পয়েন্টে শিশুদের অধিকার বিষয়ে সচেতনতা তৈরি করছিলো হাজারো ভলান্টিয়ার।

গাড়ির জানালার কাঁচে অথবা থালা নিয়ে ফুটপাতে বসে থাকা অনেক শিশুকেই আমরা প্রতিনিয়ত দেখতে পাই। প্রাপ্য শৈশব থেকে বঞ্চিত এই শিশুদেরকে অন্তত একদিনের জন্য হলেও জাগো ফাউন্ডেশন ফিরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছে সেই শৈশবটুকু। এরই লক্ষ্যে এই শিশুদের জন্য বনানী সোসাইটি মাঠে নাগরদোলা, পুতুলনাচ, চরকি, কার্টুন, নাচ-গানের আয়োজন করা হয়। এছাড়া এই শিশুদের জন্য ছিল ফ্যাশন শো এবং একটি চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, যেখানে টি-শার্টে শিশুরা তাদের স্বপ্নগুলোকে ইচ্ছেমতো এঁকেছে। আরও ছিল ক্রিটিক্যালিঙ্কের সহায়তায় শিশুদের জন্য ফ্রি স্বাস্থ্যসেবা এবং জাএনজি আইসক্রিমের ফ্রি আইসক্রিম ছিল শিশুদের জন্য।

এই প্রোগ্রামে যোগ দিয়েছিন ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট গিবসন এবং ঘুরে দেখেছেন শিশুদের এই ছুটির দিনের আনন্দময় উদযাপন। এছাড়া ছিলেন দ্য ডেইলি স্টারের প্রতিনিধিগণ, জুবিন রহমান, নর্দান তসরিফা গ্রুপ এবং জাএনজি আইসক্রিম থেকে প্রতিনিধি, হানিফ জাকারিয়া, ইত্তেহাদ এয়ারওয়েজ, ফাইয়াজ আহমেদ খান, ফারইস্ট নিটিং, ফায়েজ তাহের, স্টার্টআপ ঢাকা।

ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট গিবসন বলেন, ‘অসাধারণ একটি প্রোগ্রাম। শিশুদের এই আনন্দ দেখে মনে হচ্ছে, যদি আমি এই হাসিমুখগুলো সাথে করে নিয়ে যেতে পারতাম। শিশুদের জন্য জাগো ফাউন্ডেশনের এই উদ্যোগ ধেকে আমি সত্যি অভিভূত।’ কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের চেয়ারপার্সন নাফিসা কামাল বলেন, ‘কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস থাকছে Education for Win-এর প্রচেষ্টা নিয়ে জাগো ফাউন্ডেশনের সাথে। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস শুধু খেলাধুলাতেই নয়, জাগো ফাউন্ডেশনের সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের শিক্ষার পাশেও রয়েছে। আমরা আশা করছি, মানসম্মত শিক্ষার প্রতি আমাদের এই সাপোর্ট জাগো ফাউন্ডেশনের শিক্ষার্থীদের জন্য ভবিষ্যতে অনেক সম্ভাবনা তৈরি করবে।’ জাগো ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা করভী রাখসান্দ বলেন, ‘৭ বছর ধরে আমরা বিশ্ব শিশু দিবস পালন করছি এবং গত ৯ বছর ধরে মানসম্মত শিক্ষা ও শিশুদের অধিকার নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি এবং আমাদের দেশের তরুণরাও এ ব্যাপারে সচেতন। আমি অনেক আনন্দিত যে, ইউএন এবার মানসম্মত শিক্ষাকে তাদের এসডিজির ৪ নম্বর গোল হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করেছে। পাশাপাশি আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমডিজির মতো এসডিজিতেও বাংলাদেশকে বিশ্বে উদাহরণ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে চেয়েছেন এবং শিক্ষায় বিনিয়োগ করার কথা বলেছেন।’ এই অনুষ্ঠানে দ্য ডেইলি স্টার স্ট্র্যাটেজিক পার্টনার হিসেবে সহযোগিতা করেছে। এছাড়া সহযোগী পার্টনার হিসেবে ছিল রহিম আফরোজ, সোলার, জাএনজি আইসক্রিম, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস, রেনাটা লি., ট্রান্সকম ফুডস লি., বেক্সিমকো ফার্মা, নর্দান তসরিফা, কে নাসিফ ফটোগ্রাফি, প্রীত রেজা প্রোডাকশন, রেডিও ফুর্তি ও দৈনিক ইত্তেফাক। 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২ নভেম্বর, ২০২১ ইং
ফজর৫:০৪
যোহর১১:৪৮
আসর৩:৩৫
মাগরিব৫:১৪
এশা৬:৩১
সূর্যোদয় - ৬:২৪সূর্যাস্ত - ০৫:০৯
পড়ুন