তরুণদের এগিয়ে নিতে কারিগরি শিক্ষা
হাসান হায়দার শুভ২৭ জুলাই, ২০১৬ ইং
তরুণদের এগিয়ে নিতে কারিগরি শিক্ষা
পাস করা মানেই শিক্ষিত হওয়া নয়। একজন আলোকিত মানুষ পুরো জীবন ভরেই পড়াশোনা করেন। তাই তরুণদের জন্য বর্তমানে কারিগরি শিক্ষা একটি বড় শক্তি।  দেশের মানসম্মত বা গুণগত শিক্ষা নিয়ে কারিগরিতে শিক্ষক সংকট, ল্যাব সংকট রয়েছে। একইসঙ্গে অবকাঠামো সংকট তো রয়েছেই। যেহেতু কারিগরি শিক্ষা ব্যবহারিক জ্ঞানভিত্তিক, তাই এই শিক্ষার গুণগতমান নিশ্চিত করতে হলে অবকাঠামো, ল্যাব নির্মাণ, মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুমসহ পর্যাপ্ত বিনিয়োগ বাড়ানো প্রয়োজন। এই শিক্ষায় যত বেশি বিনিয়োগ হবে তার সুফলও তত বেশি আসবে। কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষায় উন্নত দেশগুলো অনেক এগিয়ে গেছে। সেই তুলনায় বলা যায়, বাংলাদেশ পিছিয়ে রয়েছে বহু দিক থেকেই। ২০০৯ সালের আগে এ শিক্ষাব্যবস্থার তেমন গুরুত্ব ছিল না। তবে জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০-এ বাংলাদেশের কারিগরি শিক্ষাব্যবস্থা বেশ গুরুত্ব পেয়েছে।

বাংলাদেশের প্রায় সব জেলায় একটি করে সরকারি পলিটেকনিক ও একটি করে টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ রয়েছে। দেশের সব সরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে বিগত দশ বছর যাবত একটি সিটের বিপরীতে প্রথম ও দ্বিতীয় শিফটে দুইজন শিক্ষার্থী ভর্তি করা হচ্ছে, যা বাস্তবসম্মত। কিন্তু ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে একটি সিটের বিপরীতে দেশের সকল পলিটেকনিকে প্রায় ৫ জন শিক্ষার্থী ভর্তি করানো হয়েছে। অপরিকল্পিতভাবে ভর্তি করানো এসব শিক্ষার্থীর শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনার জন্য কোনো পলিটেকনিক কলেজেই পর্যাপ্ত পরিমাণ ক্লাস রুম, ল্যাব, আসবাবপত্র, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী নেই। এই শিক্ষার্থীরা পাবে না ক্লাসরুম, ল্যাব, শিক্ষক; তাহলে কেন এসব কোমলমতি শিক্ষার্থীদের ভর্তি নেওয়া হলো? এসব শিক্ষার্থী যখন তাদের অধিকার যেমন—ক্লাসরুম, ল্যাব, শিক্ষক পাবে না, তখন তাদের এসব ন্যায্য অধিকার আদায়ে দেশব্যাপী পুনরায় আন্দোলন গড়ে উঠবে। বৃহত্ পরিকল্পনা ব্যতীত কারিগরি শিক্ষার এনরোলমেন্ট বাড়াতে গিয়ে হিতে বিপরীত অবস্থায় পড়তে পারে।

তরুণরা বর্তমানে একটি ল্যাব বা ওয়ার্কশপ করেও কর্মসংস্থানের সুযোগ করতে পারে। বলা যায়, কর্মসংস্থানের সুযোগ থাকায় কারিগরি শিক্ষার প্রতি শিক্ষার্থীদের আগ্রহ বাড়ছে। এ ছাড়া কারিগরি শিক্ষার মূল উদ্দেশ্য হলো—জনশক্তিকে কর্মমুখী করে তোলা। কারিগরি শিক্ষা দক্ষ জনবল তৈরির মূল ক্ষেত্র। তাই উত্পাদনমুখী ও জীবনভিত্তিক এ শিক্ষার প্রতি শিক্ষার্থীদের আকৃষ্ট করতে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেওয়া উচিত। এ ছাড়া কারিগরি শিক্ষাব্যবস্থায় গুণগত পরিবর্তন আনতে নানা পদক্ষেপ নিতে হবে। কারিগরি শিক্ষাসহ শিক্ষায় বরাদ্দ বাড়াতে হবে। এই অগ্রগতিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে এবং অবকাঠামো, শিক্ষক, ল্যাব সংকট কাটিয়ে উঠতে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া এখন সময়ের দাবি।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২৭ জুলাই, ২০২১ ইং
ফজর৪:০২
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪৪
মাগরিব৬:৪৭
এশা৮:০৮
সূর্যোদয় - ৫:২৫সূর্যাস্ত - ০৬:৪২
পড়ুন