ইমাম শেখের ইচ্ছাপূরণ
আফসারা তাসনিম০১ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭ ইং
ইমাম শেখের ইচ্ছাপূরণ
রবি ঠাকুরের ‘ইচ্ছাপূরণ’ গল্পের কথা আমরা কে না জানি। বালক আর তার পিতার ইচ্ছা যেমনি পূরণ হয়েছিল এক রাতের ব্যাবধানে, ঠিক তেমনই এক রাতের ব্যবধানে পাল্টে গেছে ইমামের জীবন। বলছিলাম টুঙ্গিপাড়ার ইমাম শেখের কথা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভ্যানে চড়িয়ে গ্রাম ঘুরিয়ে গণমাধ্যমে খবর হওয়ার পাশাপাশি পাল্টে গেছে তার জীবনের মোড়। পূরণ হয়েছে তার ইচ্ছা। নিজেকে এখন সবচেয়ে সুখী মানুষ হিসেবে দেখছেন তিনি। আর তাই তিনি বঙ্গবন্ধু কন্যার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে তার দীর্ঘায়ু কামনা করেন।

সংসারের অভাব-অনটনের কারণে লেখাপড়া ছেড়ে ভ্যান চালানো শুরু করেন ইমাম শেখ। বাসায় তার মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন অসুস্থ বাবা আর পরিবারের সবার ভরণপোষণের দায়িত্ব ছিল তার উপর। প্রধানমন্ত্রী তার এই অবস্থার কথা জানতে পেরে তাকে বিমান বাহিনীতে একটি চাকরির সুযোগ করে দেন, দায়িত্ব নেন ইমামের বাবার চিকিত্সার, বাড়িঘর মেরামতের। যেই ভ্যানটিতে তিনি চড়েছিলেন, সেটিকে নিয়ে যাওয়া হবে জাদুঘরে। সবমিলিয়ে পালটে গেছে ইমাম শেখের জীবন। বিমান বাহিনীর যশোর ক্যান্টনমেন্টের বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান ঘাঁটির স্কোয়াড্রন লিডার হারুন-উর-রশিদ টুঙ্গিপাড়ার সরদারপাড়া গ্রামে ইমাম শেখের বাড়িতে গিয়ে তার হাতে চাকরির নিয়োগপত্র তুলে দেন। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে ইমামকে এ চাকরি দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি। একইসঙ্গে তার মায়ের কাছে বিমান বাহিনীর পক্ষ থেকে ৪০ হাজার টাকার চেক হস্তান্তর করেন তার পিতার চিকিত্সা ও বাড়িঘর মেরামতের জন্য। এই সময় বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান ঘাঁটির স্কোয়াড্রন লিডার দেলোয়ার হোসাইনসহ বিমানবাহিনীর কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। টুঙ্গিপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী গোলাম মোস্তফা, টুঙ্গিপাড়া প্রেসক্লাবের সভাপতি বিএম গোলাম কাদের সাক্ষী হিসেবে ইমাম শেখের নিয়োগপত্রে স্বাক্ষর করেন। তবে তাকে কোন পদে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে তা জানা যায়নি। এসব আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে দুপুরের দিকে ইমাম হোসেন ব্যাগ গুছিয়ে ভ্যানসহ বিমান বাহিনীর গাড়িতে করে যশোরের উদ্দেশে রওনা দেন।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার নাতি-নাতনিদের সঙ্গে ঘুরতে বের হন ইমাম শেখের ভ্যানে করে। সঙ্গে ছিলেন তার ছোট বোন শেখ রেহানার ছেলে রেদওয়ান মুজিব সিদ্দীক ববি, তার ছেলে পপি সিদ্দিক, তাদের মেয়ে লিলা তুলি সিদ্দিক ও ছেলে কায়াস মুজিব সিদ্দিক। গ্রামের বিভিন্ন স্থানে ভ্যান থামিয়ে মানুষের সঙ্গে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী ও তাদের খোঁজখবর নেন। মানুষকে আরও অবাক করে দিয়ে ফেরার পথে প্রায় এক কিলোমিটার রাস্তা হেঁটে আসেন তিনি।

 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১ ফেব্রুয়ারী, ২০২১ ইং
ফজর৫:২১
যোহর১২:১৩
আসর৪:০৯
মাগরিব৫:৪৮
এশা৭:০৩
সূর্যোদয় - ৬:৩৯সূর্যাস্ত - ০৫:৪৩
পড়ুন