আবাসন খাতের জন্য জাতীয় কমিটি গঠনের দাবি রিহ্যাবের
ইত্তেফাক রিপোর্ট১৩ জুন, ২০১৬ ইং
আবাসন খাতের সংকট কাটাতে রিহ্যাবের পক্ষ থেকে ১৩টি প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল। তবে বাজেটে সেসবের কোনোটিরই প্রতিফলন ঘটেনি। একারণে জাতীয় বাজেটের বিষয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছে রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (রিহ্যাব)। আবাসন খাতের সমস্যা সমাধানে সরকারের ঊর্ধ্বতন মহল থেকে একটি জাতীয় কমিটি গঠনের দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

গতকাল রাজধানীর একটি হোটেলে প্রস্তাবিত বাজেট বিষয়ে মতামত দিতে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে রিহ্যাব। আবাসন ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠনের প্রেসিডেন্ট আলমগীর শামসুল আলামিন লিখিত বক্তব্যে বলেন, আবাসন খাত নানাবিধ প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন। উদীয়মান এ খাতে বিভিন্ন কর আরোপ ও সরকারের নীতি সহায়তার অভাবে ক্রমে দেশের আবাসন খাত মারাত্মক ঝুঁকির মুখে পড়েছে। প্রায় ২২ হাজার ক্রেতা, দুই হাজার জমির মালিক ও রিহ্যাব সদস্য এবং সদস্য নন এমন আড়াই হাজার ডেভেলপার মহাসংকটে পড়েছে। তৈরি ফ্ল্যাট বিক্রি না হওয়ায় সদস্যদের নিজস্ব পুঁজি ও ব্যাংক থেকে নেওয়া ঋণ আটকে গেছে বলে সেইসব কোম্পানির বিক্রিত ফ্ল্যাট বুঝিয়ে দেয়া সম্ভব হচ্ছে না।

রিহ্যাব প্রেসিডেন্ট বলেন, সরকার কোনো বাজেটে বা কোনোভাবেই আবাসন ব্যবসায়ীদের সুবিধা দেয়নি। বরং প্রতিটি বাজেটের পর ব্যয় বেড়েছে। উচ্চ রেজিস্ট্রেশন ব্যয়ের ফলে ক্রেতারা রেজিস্ট্রেশন আগ্রহ হারাচ্ছে। এতে সরকারের আয় কমে যাচ্ছে। তিনি বলেন, আমাদের বাজেট প্রস্তাবনায় আমরা সিঙ্গেল ডিজিট সুদে হাউজিং লোনের জন্য যে কোনো পরিমাণের একটি তহবিল গঠন, রেজিস্ট্রেশন ব্যয় হ্রাস, আয়কর কমানোসহ বেশ কিছু বিষয়ে মোট ১৩টি দাবি উত্থাপন করেছিলাম। এসব দাবির ফলপ্রসূ সমাধান পাইনি। তাই আগামীতে বাজেটের আগে আমরা সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আর আলোচনা করব কিনা ভেবে দেখার সময় এসেছে। তিনি বলেন, আলোচনা করে যেখানে সুরাহা হয় না সেখানে আলোচনা করে লাভ কি?

তিনি বলেন, আবাসন খাত রক্ষা করতে আমরা প্রধানমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী ও এনবিআরের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করছি। বর্তমান প্রেক্ষাপট বিবেচনা করে সরকারের ঊর্ধ্বতন মহল থেকে একটি শক্তিশালী জাতীয় কমিটি গঠনেরও দাবি জানাচ্ছি। পাশাপাশি তিনি আবাসন শিল্পের কল্যাণে সাতটি বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণেরও দাবি জানান ।

আলমগীর শামসুল আলামিন বলেন, আবাসন শিল্পের ক্রান্তিকাল উত্তরণের জন্য স্টিম্যুলাস প্যাকেজ, শহর এলাকায় ৫ বছরের এবং শহরের বাইরে ১০ বছরের জন্য ট্যাক্স হলিডে, বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক স্বল্প আয়ের ও মধ্যবিত্ত শ্রেণির জনসাধারণের জন্য যে কোনো পরিমাণ টাকার তহবিল গঠন করে দীর্ঘমেয়াদী সিঙ্গেল ডিজিট সুদে রি-ফাইন্যান্সিং পুনঃপ্রচলন, আবাসন শিল্পে অন্যান্য দেশের মত শিল্প ঋণসহ শিল্প সুবিধার প্রচলন, রেজিস্ট্রেশন ব্যয় ৪ শতাংশ করে কমানো ও অপ্রদর্শিত অর্থ সৃষ্টি প্রবণতা কমানো। সেকেন্ডারি মার্কেটের রেজিস্ট্রেশন ব্যয় এক  ও দুই শতাংশ করে মানি ফ্লো বাড়ানো, নগদ ও খুচরা পণ্য ক্রয়ে ভ্যাট ও উেস কর বন্ধ করা এবং নির্মাণ প্রকল্পগুলোতে ইউটিলিটি বিলসমূহ ইন্ডাস্ট্রিয়াল রেটে নির্ধারণ করতে হবে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে রিহ্যাব প্রেসিডেন্ট বলেন, কালো টাকা সাদা করার সুযোগ এখনো আছে, তবে এ টাকা বিনিয়োগ হলেই দুদক টাকার উত্স জানতে চায়। এ কারণে কেউ এখাতে বিনিয়োগ করতে আসছেন না।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট নূরন্নবী চৌধুরী শাওন এমপি, প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট লিয়াকত আলী ভূঁইয়া, দ্বিতীয় ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. আহকামউল্লাহ, ভাইস প্রেসিডেন্ট (অ্যাডমিন) প্রকৌশলী সরদার মো. আমিন ও ভাইস প্রেসিডেন্ট (ফিন্যান্স) প্রকৌশলী মোহাম্মদ সোহেল রানা।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৩ জুন, ২০২১ ইং
ফজর৩:৪৩
যোহর১১:৫৯
আসর৪:৩৯
মাগরিব৬:৪৯
এশা৮:১৪
সূর্যোদয় - ৫:১১সূর্যাস্ত - ০৬:৪৪
পড়ুন