শিল্পখাতে ঋণ বিতরণ বেড়েছে
১১ অক্টোবর, ২০১৭ ইং
g রেজাউল হক কৌশিক

শিল্প ঋণ বিতরণ আগের বছরের তুলনায় বেড়েছে। ২০১৫-১৬ অর্থবছরের জুলাই-জুন সময়ে শিল্প খাতে ঋণ বিতরণ হয় প্রায় দুই লাখ ৬৪ হাজার ৮৮৮ কোটি টাকা। ২০১৬-১৭ অর্থবছরের একই সময়ে ঋণ বিতরণ বেড়ে হয়েছে তিন লাখ ৬৭২ কোটি টাকা। অর্থাত্ ঋণ বিতরণ বেড়েছে ১৩ দশমিক ৫১ শতাংশ।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত অর্থবছরের (২০১৬-১৭) জুলাই-জুন সময়ে শিল্প ঋণে খেলাপির পরিমাণ দাঁড়িয়েছে প্রায় ৩০ হাজার ৫৫৫ কোটি টাকা, এর আগের অর্থবছরের (২০১৫-১৬) একই সময়ে যা ছিল প্রায় ২৫ হাজার ৬৮ কোটি টাকা। এক বছরের ব্যবধানে খেলাপি ঋণ বেড়েছে ৫ হাজার ৪৮৭ কোটি টাকা বা ২১ দশমিক ৮৯ শতাংশ।

অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশের (এবিবি) সাবেক চেয়ারম্যান ও মেঘনা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোহাম্মদ নুরুল আমিন বলেন, সব খাতে খেলাপি হচ্ছে। তবে শিল্প খাতে একটু বেশি।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, শিল্প খাতে মোট খেলাপির মধ্যে মেয়াদি শিল্প ঋণ খাতে খেলাপি ১৫ হাজার ৬৫৫ কোটি টাকা এবং চলতি মূলধন ঋণ খাতে খেলাপি হয়েছে ৯ হাজার ৫৯৩ কোটি টাকা। উল্লেখিত খেলাপির যথাক্রমে বৃহত্ শিল্পে ৫৬ দশমিক ৪৮ শতাংশ, মাঝারি শিল্পে ৩০ দশমিক ৬৪ শতাংশ এবং ক্ষুদ্র শিল্পে খেলাপি ১২ দশমিক ৮৮ শতাংশ। প্রতিবেদনে আরও দেখা যায়, শিল্প ঋণে সব চেয়ে বেশি খেলাপি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের। মোট খেলাপির ৪০ দশমিক ৪৫ শতাংশ হলো সরকারি ৬টি ব্যাংকের। বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোতে ৪৮ দশমিক ৩৪ শতাংশ, বিশেষায়িত ব্যাংকে ২ দশমিক ৪৯ শতাংশ, নন ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানে ৬ দশমিক ৯৩ শতাংশ এবং বিদেশী ব্যাংকগুলোর শিল্প খাতে খেলাপি ঋণ ১ দশমিক ৭৯ শতাংশ।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদনে দেখা যায়, চলতি বছরের (জানুয়ারি-মার্চ) সময়ে শিল্প খাতে খেলাপি ঋণ ছিল ২৭ হাজার ৮১৫ কোটি টাকা। সর্বশেষ চলতি বছরের এপ্রিল-জুনে তা বেড়ে দাঁড়ায় ৩০ হাজার ৫৫৫ কোটি টাকায়। অর্থাত্ তিন মাসের ব্যবধানে খাতটিতে খেলাপি ঋণ বেড়েছে ৯ দশমিক ৮৫ শতাংশ।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ব্যাংকগুলোকে খেলাপি ঋণ কমাতে হবে। এজন্য ঋণের ক্ষেত্রে রাজনৈতিক প্রভাব কমানো জরুরী। রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোতে রাজনৈতিক প্রভাবে বেশি ঋণ যায় বলেই এ ব্যাংকগুলোতে খেলাপি ঋণে পরিমাণও বেশি। তাছাড়া ঋণ প্রদানের ক্ষেত্রে ব্যাংকগুলোকে সতর্ক হতে হবে। এ ব্যাপারে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পক্ষ থেকে ব্যাংকগুলোকে সব সময়ই নির্দেশনা দেওয়া হচ্ছে। তবে দীর্ঘমেয়াদি ঋণের জন্য শিল্প খাতকে পুঁজিবাজারে যেতে হবে। এতে পুঁজিবাজার ও ব্যাংকিং খাত উভয়ের জন্যই ভালো হবে।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১১ অক্টোবর, ২০২১ ইং
ফজর৪:৩৯
যোহর১১:৪৬
আসর৩:৫৮
মাগরিব৫:৪০
এশা৬:৫১
সূর্যোদয় - ৫:৫৪সূর্যাস্ত - ০৫:৩৫
পড়ুন