সিরিয়া নিয়ে শান্তি আলোচনা পিছিয়ে দেয়া হলো
যুদ্ধবিরতি সংক্রান্ত বিষয়াবলী নির্দিষ্ট করা হবে
বিবিসি ও রয়টার্স০৩ মার্চ, ২০১৬ ইং
সিরিয়া নিয়ে শান্তি আলোচনা পিছিয়ে দেয়া হলো
যুদ্ধবিরতি সংক্রান্ত বিষয়াবলী নির্দিষ্ট করতে সিরিয়া নিয়ে শান্তি আলোচনা পিছিয়ে দেয়া হয়েছে। এরই মধ্যে সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ জানিয়েছেন, বিদ্রোহীরা অস্ত্র ত্যাগ করলে তিনি তাদের ক্ষমা করে দিবেন। এদিকে সন্ত্রাসীদের অস্ত্র সরবরাহ রোধে সিরিয়া-তুরস্ক সীমান্ত বন্ধের আহবান জানিয়েছেন রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ।

যুদ্ধবিরতি সংক্রান্ত বিষয়াবলী নির্দিষ্ট করতে শান্তি আলোচনা মার্চের ৯ তারিখে পিছিয়ে দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিরিয়া বিষয়ক জাতিসংঘের বিশেষ দূত। গত মাসে এর আগের দফার শান্তি আলোচনা মাত্র দুই দিন পর ভেঙে গিয়েছিল। উল্লেখ্য, উভয়পক্ষই লঙ্ঘনের অভিযোগ করলেও সর্বশেষ সাময়িক যুদ্ধবিরতিটি সহিংসতা কমানোর ক্ষেত্রে একটি দৃষ্টান্ত হয়েছে।

যুদ্ধবিরতি প্রসঙ্গে সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ জার্মানির এআরডি টেলিভিশনকে দেয়া এক সাক্ষাত্কারে বলেন, সরকার ‘আমাদের অংশটুকু করবে যাতে পুরো বিষয়টা কাজ করে’। তিনি বলেন, ‘চুক্তিটি রক্ষার জন্য একটি সুযোগ দিতে প্রতিশোধ নেয়া থেকে আমরা আমাদের নিবৃত্ত করেছি’। বিদ্রোহীরা যদি নিরস্ত্র হতে রাজি হয়, তাহলে তাদের ‘পূর্ণ ক্ষমার’ প্রস্তাবও দেন আসাদ।

এদিকে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ তুরস্ক ও সিরিয়ার মধ্যবর্তী সীমান্ত বন্ধ করে দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, সিরিয়ায় তত্পর সন্ত্রাসীদের অস্ত্র সরবরাহ করার জন্য এই সীমান্ত ব্যবহার করা হচ্ছে। এ অবস্থায় খুব জরুরি একটি কাজ হচ্ছে, সিরিয়া-তুরস্ক সীমান্ত বন্ধ করে দেয়া। এর কারণ, এই সীমান্ত দিয়ে সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলো অস্ত্রের চালান পাচ্ছে। জেনেভায় জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদে দেয়া বক্তব্যে আসাদ এসব কথা বলেন।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৩ মার্চ, ২০২১ ইং
ফজর৫:০৪
যোহর১২:১১
আসর৪:২৪
মাগরিব৬:০৫
এশা৭:১৮
সূর্যোদয় - ৬:১৯সূর্যাস্ত - ০৬:০০
পড়ুন