জিকায় হতে পারে স্নায়ুবিক বৈকল্য
বিবিসি০৩ মার্চ, ২০১৬ ইং
জিকা ভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে কেউ কেউ মারাত্মক স্নায়বিক বৈকল্যে ভুগতে পারেন। এক গবেষণায় এ সংক্রান্ত প্রথম প্রমাণ পাওয়া গেছে।

মেডিক্যাল সাময়িকী ল্যানসেট জার্নালের বরাতে গণমাধ্যমটি বলছে, জিকায় আক্রান্ত হওয়ার ৬ দিনের মধ্যে এ স্নায়বিক বৈকল্য দেখা দিতে পারে। এ রোগটিকে বলা হচ্ছে গিলেইন-বারে সিনড্রোম। জিকায় আক্রান্ত প্রতি চার হাজার জনে একজন এ রোগে আক্রান্ত হতে পারেন বলে ধারণা প্রকাশ করেছেন গবেষকরা।

ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়ায় দুই বছর আগে জিকা ভাইরাসে আক্রান্ত ৪২ রোগীর রক্তের নমুনা পরীক্ষা করে গবেষকরা গিলেইন-বারের সঙ্গে জিকার এ সংযোগ খুঁজে পান বলে জার্নালটিতে দাবি করা হয়েছে। গবেষকরা বলছেন, জিকা ভাইরাস সংক্রমণে রোগীর দেহে স্নায়বিক জটিলতা দেখা দিতে শুরু করার পরে তা ধীরে ধীরে গিলেইন বারে সিনড্রোমে রূপ নেয়। এ রোগীদের অবস্থা সাধারণভাবে ওই সিনড্রোমে আক্রান্ত রোগীদের চেয়ে দ্রুত অবনতির দিকে যায়। গবেষকরা জানান, ৪২ জন আক্রান্তের কেউই মারা যাননি। তবে তাদের অনেকেই বেশ কয়েক মাস ধরে অন্যের সহায়তা ছাড়া হাঁটতে পারেননি।

চলতি মাসের শুরুতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) জিকা ভাইরাসকে ‘জনস্বাস্থ্যের জন্য হুমকি’ঘোষণা করে এ নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। মশাবাহিত এই ভাইরাসের সঙ্গে মাইক্রো-ফেলাসি রোগের উপসর্গ ‘নবজাতকের অবিকশিত মস্তিষ্ক’ এর সংযোগ রয়েছে এমন সন্দেহে এরই মধ্যে মধ্য ও দক্ষিণ আমেরিকার দেশগুলোতে ‘জরুরি অবস্থা’ জারি করা হয়েছে।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৩ মার্চ, ২০২১ ইং
ফজর৫:০৪
যোহর১২:১১
আসর৪:২৪
মাগরিব৬:০৫
এশা৭:১৮
সূর্যোদয় - ৬:১৯সূর্যাস্ত - ০৬:০০
পড়ুন