‘বিশ্বে আধিপত্য বিস্তারের জন্য আর্থিক প্রলোভন দেখাচ্ছে চীন’
২৬ আগষ্ট, ২০১৮ ইং
তাইওয়ানের সঙ্গে এল সালভেদর সম্পর্ক ছিন্ন করায় যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ

 রয়টার্স ও এএফপি

তাইওয়ান-চীন সম্পর্ক অস্থিতিশীল করে তোলার জন্য যুক্তরাষ্ট্র বৃহস্পতিবার চীনকে দায়ী করেছে। বেইজিংয়ের পক্ষে অবস্থান নিয়ে তাইপের সঙ্গে এল সালভেদর কূটনৈতিক সম্পর্কের অবসান ঘটাবে চলতি সপ্তাহে এমন ঘোষণা দেওয়ার পরে ওয়াশিংটন ‘তাইওয়ান-চীন সম্পর্ক ’অস্থিতিশীল করে তোলার জন্য বেইজিংকে অভিযুক্ত করলো। যুক্তরাষ্ট্র এ ব্যাপারে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছে  বিশ্বে আধিপত্য বিস্তারের জন্য আর্থিক প্রলোভন দেখাচ্ছে চীন। যুক্তরাষ্ট্রের দোষারোপের জবাবে চীন বলেছে- এল সালভেদরের সঙ্গে চীনের সম্পর্ককে সঠিকভাবে দেখছে না যুক্তরাষ্ট্র। তবে  যুক্তরাষ্ট্রের বক্তব্যে সন্তোষ প্রকাশ করেছে মিত্র তাইওয়ান।

হোয়াইট হাউসের এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘তাইওয়ান-চীন সম্পর্ক অস্থিতিশীল করার এবং পশ্চিম গোলার্ধে রাজনৈতিক হস্তক্ষেপের চীনা নীতির বিরোধিতা অব্যাহত রাখবে যুক্তরাষ্ট্র।’ মঙ্গলবারের ঘোষণার ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ‘এই সিদ্ধান্ত কেবলমাত্র এল সালভেদরকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে না এটি পুরো আমেরিকা অঞ্চলের অর্থনীতি ও নিরাপত্তা ব্যবস্থার ওপর প্রভাব ফেলবে। ফলে মধ্য আমেরিকার দেশ এল সালভেদরের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র তাদের সম্পর্ক পুনর্মূল্যায়ন করবে।

তাইওয়ানের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক কূটনৈতিক সম্পর্ক না থাকলেও দেশটির সবচেয়ে বড় অস্ত্রের জোগানদাতা এবং আন্তর্জাতিক পৃষ্ঠপোষক যুক্তরাষ্ট্র। চীন-তাইওয়ানকে তাদের একটি বিচ্ছিন্ন অঞ্চল হিসেবে বিবেচনা করে এবং কখনো তাইওয়ানকে নিজেদের অন্তর্ভুক্ত করতে সামরিক শক্তি প্রয়োগের সম্ভাবনাকে নাকচ করেনি। চীন বিশ্বাস করে অন্য কোনো দেশের সাথে স্বতন্ত্র কূটনৈতিক সম্পর্ক রাখতে পারে না তাইওয়ান।  তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট সাই ইং ওয়েন বলেছেন, তার দেশ চীনের ক্রমবর্ধমান অনিয়ন্ত্রিত আচরণের সাথে লড়াই করে যাবে।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২৬ আগষ্ট, ২০২১ ইং
ফজর৪:২০
যোহর১২:০১
আসর৪:৩৩
মাগরিব৬:২৬
এশা৭:৪১
সূর্যোদয় - ৫:৩৮সূর্যাস্ত - ০৬:২১
পড়ুন