ছয় বছরে মানবপাচারের শিকার তিন হাজারেরও বেশি ভিয়েতনামি
২৬ আগষ্ট, ২০১৮ ইং

রয়টার্স

২০১২ থেকে ২০১৭ সালের মধ্যে ভিয়েতনামে তিন হাজারেরও বেশি মানুষ মানবপাচারের শিকার হয়েছে। এদের মধ্যে বেশিরভাগই হলো নারী ও শিশু। তাদের বেশিরভাগকেই চীনে পাচার করা হয়েছে। দেশটির জননিরাপত্তা মন্ত্রণালয় শুক্রবার বলেছে, এ সমস্যা মোকাবিলা করতে সংসদের আইন কঠোর করার চেষ্টা করা হয়েছিল। 

মানবপাচারকারীরা ফেসবুক ও ভিয়েতনামিজ ম্যাসেজিং অ্যাপসের মাধ্যমে মানুষদের প্রলুব্ধ করতো। পরে তাদের বাজার ও স্কুল থেকে নিয়ে আসা হতো। তাদের পানশালা, রেস্টুরেন্ট ও বিদেশে চোরাচালানের মাধ্যমে পাচারকারীরা বিক্রি করতো বলে মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে জানানো হয়। এদের মধ্যে ৭৫ শতাংশ মানুষকে চীনের সীমান্ত দিয়ে পাচার করা হয়েছে।

এদিকে দেশটির ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির বিচার বিভাগের প্রধান লে থি নগা এ বিষয়ে একটি শুনানি করেন। এ সময় তিনি বলেন, দূরবর্তী ও পর্বতশৃঙ্গ এলাকায় নয়, সারাদেশে মানবপাচার হচ্ছে। 

দেশটির জননিরাপত্তা মন্ত্রণালয় বলছে, ২০১২ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত এক হাজার ২১ জন পাচার হওয়া মানুষের বিষয়ে পুলিশ তদন্ত করছে। এ পর্যন্ত এসব ঘটনায় দুই হাজার ৩৫ জন মানুষকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়া ২০১৭ সাল পর্যন্ত তিন হাজার ৯০ জন মানুষ মানবপাচারের শিকার হয়েছে। যাদের মধ্যে অধিকাংশ নারী ও শিশু রয়েছে।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২৬ আগষ্ট, ২০২১ ইং
ফজর৪:২০
যোহর১২:০১
আসর৪:৩৩
মাগরিব৬:২৬
এশা৭:৪১
সূর্যোদয় - ৫:৩৮সূর্যাস্ত - ০৬:২১
পড়ুন