খেলাধুলা | The Daily Ittefaq

সমালোচনার ভয়ে সতর্ক স্বাগতিকরা

সমালোচনার ভয়ে সতর্ক স্বাগতিকরা
স্পোর্টস রিপোর্টার২১ অক্টোবর, ২০১৮ ইং ১৩:০২ মিঃ
সমালোচনার ভয়ে সতর্ক স্বাগতিকরা
ক্রিকেটের মানচিত্রে বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ের লড়াই আর আগের মতো চিত্তাকর্ষক নয়। এক সময়ের প্রবল প্রতিপক্ষ ছিল জিম্বাবুয়ে। সমান তালে লড়তো দুদল। সময়ের সেই গণ্ডি পেরিয়ে শক্তিমত্তার তুলনায় জিম্বাবুয়ের চেয়ে অনেক এগিয়ে বাংলাদেশ।
 
এখন জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে জয়টা যেন টাইগারদের জন্য নিয়মিত ঘটনা। তবে হারলেই বিপদ! ওয়ানডে র্যাংকিংয়ের ১১ নম্বর দল জিম্বাবুয়ের কাছে কোনো অঘটনের শিকার হলেই সমালোচনার তোপে পড়তে হবে বাংলাদেশকে। মাশরাফি বিন মুর্তজার দল তাই সতর্ক হয়েই আজ জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে মাঠে নামছে।
 
সাকিব-তামিম নেই, বিশ্বকাপ ভাবনায় পরীক্ষা-নিরীক্ষার সুযোগ আছে, তবে সবকিছু ছাপিয়ে ম্যাচের মূল কাজটা হচ্ছে জয় নিশ্চিত করা। মিরপুর স্টেডিয়ামে গতকাল ম্যাচ পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফি বলেছেন, হারলে অনেক কথা হবে। তাই জয়টা প্রথম গুরুত্ব পাচ্ছে ম্যাচ কেন্দ্রিক পরিকল্পনায়।
 
সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে আজ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ। মিরপুর স্টেডিয়ামে দিবা-রাত্রির ম্যাচটা শুরু হবে বেলা আড়াইটায়।
 
বাংলাদেশের কন্ডিশন জিম্বাবুয়ের অনেক চেনা। মাশরাফি বলছেন, শতভাগ দিয়েই খেলতে হবে বাংলাদেশকে। আত্মতুষ্টিতে ভোগার সুযোগ নেই। গতকাল তিনি বলেছেন, ‘জিম্বাবুয়ে দলের নিজেদের মাটির পর সবচেয়ে ভাল রেকর্ড বাংলাদেশেই। সুতরাং আমাদের ১০০ ভাগ দিয়েই খেলতে হবে। হয়তো জিতলে সবাই বলবে, এটাই হওয়ার কথা ছিল। হারলে কিন্তু ভিন্ন কথা হবে, এটাই স্বাভাবিক।’
 
আট মাস পর দেশের মাটিতে খেলতে বাংলাদেশ। ইনজুরির কারণে সাকিব-তামিম নেই দলে। ছোটখাট আরো ইনজুরির ধাক্কা আছে দলে। জ্বর সেরে উঠা পেসার রুবেল হোসেনের খেলার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। বিশেষ করে আঙুলের ইনজুরি নিয়েই খেলবে অধিনায়ক মাশরাফি। তারপরও অধিনায়ক আত্মবিশ্বাসী মাঠে সেরাটা দেয়ার প্রস্তুতিই নিয়েছে দলের সবাই।
 
তিনি বলেছেন, ‘অবশ্যই, অনেকদিন পর হোমে খেলতে নামছি। অবশ্যই সবাই আত্মবিশ্বাসী। সাকিব তামিম থাকবে না, এটা আগে থেকেই সবাই জানে। সেভাবেই সবাই প্রস্তুতি নিয়েছে, সেরা পারফরম্যান্স দেয়ার জন্য যা যা দরকার করেছেন। কাল খেলা, সবাই যেটা চাচ্ছে, সেটা যেন করতে পারে।’
 
বিশ্বকাপের আগে কয়েকজন তরুণকে দেখে নেয়ার চেষ্টা করবে বাংলাদেশ। মাশরাফি বলেছেন, ‘চেষ্টা থাকবে, সেরা দলটাই গড়া। আর যে কোনো সিরিজের প্রথম ম্যাচ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অবশ্যই, কিছু নতুন প্লেয়ার দলে নেয়া হয়েছে। সামনে বিশ্বকাপকে চিন্তা করে। তাদের দেখে নেয়ার এটাই সুযোগ। সেটাও মাথায় রাখতে হবে। একই সাথে ম্যাচ জেতাটাও খুবই গুরুত্বপূর্ণ।’
 
মিরপুরের উইকেটের ভবিষ্যদ্বাণী করা কঠিন। তবে মাশরাফির মতো আড়াইশ’র বেশি রান হলেই আগে ব্যাট করা দলের ম্যাচ জেতার সুযোগ থাকবে বেশি। উইকেটের আচরণ নিয়ে গতকাল বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেছেন, ‘মিরপুরের উইকেট সম্পর্কে ভবিষ্যদ্বাণী করা খুবই কঠিন, আমরা সবাই জানি। মিরপুরের উইকেট ভিন্ন সময়ে ভিন্ন ভিন্ন আচরণ শুরু করে। আগে থেকে বলা খুবই কঠিন হবে। তবে প্রত্যাশা তো অবশ্যই করছি, সাধারণত ২৫০-৬০ রান হলে ম্যাচ ভাল হয়, আগে ব্যাট করা দলের জেতার সুযোগ বেশি থাকে।’
 
প্রস্তুতি ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে ঘায়েল করেছিলেন পেসাররা। আজ প্রথম ওয়ানডেতে অবশ্য স্পিন আক্রমণই প্রাধান্য পেতে পারে বাংলাদেশের কাছে। মাশরাফি পিছিয়ে রাখছেন না পেসারদেরও। তিনি বলেছেন, ‘উপমহাদেশ ও মিরপুরের উইকেটে স্পিনের বড় ভূমিকা থাকে। আমরা স্পিন দিয়ে তাদেরকে এর আগে অনেক সময় অল আউট করেছি। এটা অবশ্যই আমাদের মাথায় আছে এবং থাকবে।’
 
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১৪ অক্টোবর, ২০১৯ ইং
ফজর৪:৩৯
যোহর১১:৪৫
আসর৩:৫৫
মাগরিব৫:৩৭
এশা৬:৪৮
সূর্যোদয় - ৫:৫৫সূর্যাস্ত - ০৫:৩২