সারাদেশ | The Daily Ittefaq

রূপগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যানকে গুলি, আটক ২

রূপগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যানকে গুলি, আটক ২
স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ০৫ নভেম্বর, ২০১৮ ইং ২২:০৪ মিঃ
রূপগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যানকে গুলি, আটক ২
উপজেলা চেয়ারম্যানকে হত্যার চেষ্টার ঘটনায় আটক ২ সন্ত্রাসী
রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান ভূইয়াকে লক্ষ্য করে গুলি চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। তবে গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হওয়ায় প্রাণে বেঁচে যান তিনি। সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার মুড়াপাড়া বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। 
 
এসময় আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায় দুর্বৃত্তরা। তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে একই দলের লোকজন এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে দাবি শাহজাহান ভূইয়ার। এ ঘটনায় দুজনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন স্থানীয়রা।
 
আটককৃতদের কাছ থেকে ককটেল ও দেশিয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। ঘটনার প্রতিবাদে  বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়।
 
শাহজাহান ভূইয়া জানান, আগামী একাদশ সংসদ নির্বাচনে তিনিসহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই ভূইয়া রূপগঞ্জ আসনে প্রার্থীতা ঘোষণা করেছেন। কর্মকাণ্ড ও দলীয় নেতাকর্মী নির্যাতনের কারণে বর্তমান সাংসদকে প্রত্যাখ্যান করে রূপগঞ্জের সন্তানকে মনোনয়ন দেয়ার দাবিতে এক হয়েছে রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।
 
আগামী ৭ নভেম্বর উপজেলা সরকারি মুড়াপাড়া কলেজ মাঠে সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগের ব্যানারে। সে অনুষ্ঠান বানচাল করতে মুড়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ আলমাছের লোকজন সোমবার বিকেল থেকেই মুড়াপাড়া বাজার ও এর আশেপাশে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে মহড়া দিতে থাকে।
 
বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে তারা মুড়াপাড়া বাজার এলাকায় অবস্থিত উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রধান কার্যালয়ে এসে বিভিন্ন উস্কানীমূলক স্লোগান দিতে থাকে। এসময় তারা মুড়াপাড়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেন ও ভুলতা ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা সানী ভূইয়াকে পিটিয়ে জখম করে। তখন শাহজাহান ভূইয়া ভুলতা এলাকায় গণসংযোগে ছিলেন। খবর পেয়ে তিনি সন্ধ্যায় দলীয় কার্যালয়ে এলে হামলাকারীরা সংঘবদ্ধ হয়ে ফের অফিসে এসে হামলা চালায়। হামলাকারীরা শাহজাহান ভূইয়াকে লক্ষ্য করে গুলি চালালেও গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হওয়ায় প্রাণে বেঁচে যান তিনি। এসময় আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায় হামলাকারীরা।
 
এদিকে, সাধারণ সম্পাদক ও দলীয় কার্যালয়ে হামলার ঘটনার খবর ছড়িয়ে পরলে মুড়াপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের লোকজন ঐক্যবদ্ধ হয়ে হামলাকারীদের ধাওয়া করে মুড়াপাড়ার গঙ্গানগর এলাকার আনোয়ার আলীর ছেলে সেলিম ও নগর এলাকার আলমাছ আলীর ছেলে ফালানকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন। আটককৃতদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় ৪টি তাজা ককটেল, একটি রামদা ও একটি চাইনিজ কুড়াল। এদিকে এই ঘটনার প্রতিবাদে মুড়াপাড়া এলাকায় দফায় দফায় বিক্ষোভ করেন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা।
 
এ ব্যাপারে মুড়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ আলমাছের সাথে তার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ঘটনার সময় আমি এলাকার বাইরে ছিলাম। শাহজাহান ভূইয়ার লোকজন আমার দুইজন লোককে অহেতুক তুলে নিয়ে মুড়াপাড়া আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে আটক করে মারধর করছেন। আমি প্রশাসনকে জানিয়েছি। আমাকে এ ঘটনায় ফাঁসানোর জন্য তারা এ মিথ্যার আশ্রয় নিয়েছে।
 
এ ব্যাপারে রূপগঞ্জ থানার ওসি তদন্ত রফিকুল ইসলাম বলেন, ঘটনা জানার সাথে সাথে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে উত্তেজিত জনতাকে শান্ত করা হয়েছে। আটককৃতদের কাছ থেকে ককটেল উদ্ধার করেছে পুলিশ। কারা এই ঘটনার জন্য দায়ী তদন্ত সাপেক্ষে বলা যাবে।
 
ইত্তেফাক/আরকেজি
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১২ জুলাই, ২০২০ ইং
ফজর৩:৫২
যোহর১২:০৪
আসর৪:৪৪
মাগরিব৬:৫২
এশা৮:১৫
সূর্যোদয় - ৫:১৯সূর্যাস্ত - ০৬:৪৭